ঢাকা ১০:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

মহেশখালীতে অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, গ্রেপ্তার ৩

কক্সবাজার প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৯:৩৬:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪ ৮২ বার পড়া হয়েছে

সংগৃহীত

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কক্সবাজারের মহেশখালীতে একটি অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। এসময় সেখান থেকে অস্ত্র এবং অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি জব্দ করে তারা। একই সঙ্গে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা বাবা-ছেলে। শনিবার (১৬ মার্চ) ভোরে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়াস্থ পাহাড়ি এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের অফিসপাড়া এলাকার ফকির মোহাম্মদের ছেলে ফরিদুল আলম (৫৪) এবং তার ছেলে জিসাদ ওরফে সোনা মিয়া (২২) ও মো. বাহিম (২০)।

র‍্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এইচএম সাজ্জাদ হোসেন বলেন, উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সংঘবদ্ধ একটি চক্র কারখানা স্থাপন করে তৈরি অস্ত্র দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার শহরসহ বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সরবরাহ করছে বলে খবর আসে। ভোরে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়াস্থ খজ্ঞরী বাপেরঘোনা গহীন পাহাড়ি এলাকায় র‍্যাবের একটি দল অভিযান চালায়। র‍্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্দেহজনক ৫/৬ জন লোক দুর্গম পাহাড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় ধাওয়া দিয়ে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের স্থাপিত কারখানা থেকে দেশি প্রযুক্তিতে তৈরি ২টি বন্দুক, ১টি ড্রিল মেশিন, ১টি হাতুড়ি, ১টি করাত, ৪টি লোহার পাইপ, ২টি লোহার ব্যারেল, ১টি হেক্সো ব্লেড, ২টি লোহা কাটার ব্লেড, ৬০টি ওয়াশার, ২টি পাজ্ঞিং রড, ২টি বড় নাট, ১টি রেঞ্জ, ১টি স্টিল সিট, ৩টি লোহার অংশ ও ব্রাশসহ বেশ কিছু অস্ত্র তৈরির সরজ্ঞামাদি পাওয়া যায়।

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মহেশখালী থানায় মামলা করা হয়েছে।

/শিল্পী/

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

মহেশখালীতে অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, গ্রেপ্তার ৩

আপডেট সময় : ০৯:৩৬:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪

কক্সবাজারের মহেশখালীতে একটি অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। এসময় সেখান থেকে অস্ত্র এবং অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি জব্দ করে তারা। একই সঙ্গে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা বাবা-ছেলে। শনিবার (১৬ মার্চ) ভোরে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়াস্থ পাহাড়ি এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের অফিসপাড়া এলাকার ফকির মোহাম্মদের ছেলে ফরিদুল আলম (৫৪) এবং তার ছেলে জিসাদ ওরফে সোনা মিয়া (২২) ও মো. বাহিম (২০)।

র‍্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এইচএম সাজ্জাদ হোসেন বলেন, উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সংঘবদ্ধ একটি চক্র কারখানা স্থাপন করে তৈরি অস্ত্র দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার শহরসহ বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সরবরাহ করছে বলে খবর আসে। ভোরে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়াস্থ খজ্ঞরী বাপেরঘোনা গহীন পাহাড়ি এলাকায় র‍্যাবের একটি দল অভিযান চালায়। র‍্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্দেহজনক ৫/৬ জন লোক দুর্গম পাহাড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় ধাওয়া দিয়ে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের স্থাপিত কারখানা থেকে দেশি প্রযুক্তিতে তৈরি ২টি বন্দুক, ১টি ড্রিল মেশিন, ১টি হাতুড়ি, ১টি করাত, ৪টি লোহার পাইপ, ২টি লোহার ব্যারেল, ১টি হেক্সো ব্লেড, ২টি লোহা কাটার ব্লেড, ৬০টি ওয়াশার, ২টি পাজ্ঞিং রড, ২টি বড় নাট, ১টি রেঞ্জ, ১টি স্টিল সিট, ৩টি লোহার অংশ ও ব্রাশসহ বেশ কিছু অস্ত্র তৈরির সরজ্ঞামাদি পাওয়া যায়।

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মহেশখালী থানায় মামলা করা হয়েছে।

/শিল্পী/