ঢাকা ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

ময়মনসিংহে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আটক ৫

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০২:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৪ মার্চ ২০২৩ ১০৭ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায় এক শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা মামলায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (৪ মার্চ) দুপুরে জেলা পুলিশ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইলের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার পাঁচ আসামি হলেন, ওয়াজ উদ্দিনের ছেলে মো. শাহজাহান, হামেদ আলীর ছেলে শহিদ মিয়া, আবু হনিফার ছেলে মাসুম বিল্লাহ ওরফে ফজর আলী, আবুল কালামের ছেলে আলমগীর হোসেন, আ. হাইয়ের ছেলে রাসেল মিয়া। তারা প্রত্যেকে জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার রঘুনাথপুর ও পলাশপুর গ্রামের বাসিন্দা।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ফুলবাড়িয়া উপজেলার একটি গ্রামে বাড়ির পাশ থেকে ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রথমে স্থানীয় মানুষ আত্মহত্যার ধারণা করলেও সুরতহালের পর পুলিশের ধারণা হয়, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের কারণে কিশোরীর মৃত্যু হতে পারে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

এ ঘটনায় গত রোববার ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে পাঁচ থেকে ছয়জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির নামে ধর্ষণ ও হত্যার মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

রইস/৪

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ময়মনসিংহে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আটক ৫

আপডেট সময় : ১১:০২:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৪ মার্চ ২০২৩

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায় এক শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা মামলায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (৪ মার্চ) দুপুরে জেলা পুলিশ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইলের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার পাঁচ আসামি হলেন, ওয়াজ উদ্দিনের ছেলে মো. শাহজাহান, হামেদ আলীর ছেলে শহিদ মিয়া, আবু হনিফার ছেলে মাসুম বিল্লাহ ওরফে ফজর আলী, আবুল কালামের ছেলে আলমগীর হোসেন, আ. হাইয়ের ছেলে রাসেল মিয়া। তারা প্রত্যেকে জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার রঘুনাথপুর ও পলাশপুর গ্রামের বাসিন্দা।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ফুলবাড়িয়া উপজেলার একটি গ্রামে বাড়ির পাশ থেকে ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রথমে স্থানীয় মানুষ আত্মহত্যার ধারণা করলেও সুরতহালের পর পুলিশের ধারণা হয়, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের কারণে কিশোরীর মৃত্যু হতে পারে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

এ ঘটনায় গত রোববার ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে পাঁচ থেকে ছয়জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির নামে ধর্ষণ ও হত্যার মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

রইস/৪