ঢাকা ১০:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

মহাসড়কে জলাবদ্ধতায় পথচারীদের ভোগান্তি

ভূল্লী বাজারে নেই ড্রেনেজ ব্যবস্থা

ঠাকুরগাঁও প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:২৮:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪ ৭২ বার পড়া হয়েছে

ছবি : নিজস্ব

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

Thakurgaon :

ঠাকুরগাঁওয়ে ভূল্লী থানা বাজারে মহাসড়কে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় গত দু’দিনের বৃষ্টিতে পানি জমে রাস্তা দুই পাশ তলিয়ে গেছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ।

ঐতিহ্যবাহী জনপ্রিয় এই বাজারটি ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কে উপর অবস্থিত হওয়ায় প্রতিনিয়ত বিভিন্ন এলাকা থেকে ছুটে আসেন ক্রেতা ও বিক্রেতারা। এ কারণে কয়েকটি গ্রামের মানুষের কাছে এটি প্রধান বাজার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই দিকে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় মহাসড়কে দুই পাশে খানাখন্দে সড়কটি এখন বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে।

পানি বের হবার কোনো পথ না থাকায় জলাবদ্ধতা রয়েছে সড়কে। দিনের পর দিন পানি জমে থাকার কারণে সড়কের কার্পেটিং উঠে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এতে করে ওই পথ দিয়ে চলাচল পথচারীদের যেমন নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে তেমনি যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় দুই দিনের বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে সড়কের দুই পাশ । পানি বেড় হওয়ার কোনো পথ নেই। এ অবস্থায় ভোগান্তি ও দুর্ভোগ মাথায় নিয়ে প্রতিনিয়ত ওই পানিবন্দি পথ দিয়ে যাতায়াত করছে শতশত পথচারী। জনদুর্ভোগ কমাতে দ্রুত টেকসই ড্রেন নির্মাণ ও সড়ক সংস্কার করা প্রয়োজন।

পথচারী হাসান আলী বলেন, দিনে কয়েকবার এই সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হয়। জলাবদ্ধতার কারণে যাতায়াতে খুব অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। কয়েকদিন আগে একজন চার্জার ভ্যানে যেতে ঝাঁকুনিতে পড়ে চালের দুটি বস্তা ফেটে পানিতে পড়ে নষ্ট হয়। পানিতে রাস্তা ডুবে থাকায় সড়কে ছোট-বড় গর্ত বোঝা যায় না। এতে করে আমাদের বিপদের ঝুঁকি রয়েছে বলে জানায় হাচান আলীসহ অন্যান্য পথচারীরা।

বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, দু’দিনের টানা বৃষ্টির পানির সঙ্গে ময়লা-আবর্জনা মিশে অসহনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ব্যবসায়িসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা ক্রেতারা। প্রতি বছর বাজার ইজারা দিয়ে রাজস্ব আদায় করা হয়ে থাকে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই বাজারে উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই।

পানি নিস্কাশনের জন্য যে ছোট ড্রেনেজ ব্যবস্থা ছিলো সেটি এক দশক আগেই ময়লা-আবর্জনায় বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া অপরিকল্পিতভাবে দোকান নির্মাণ এবং বিভিন্নস্থানে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়ার কারণে প্রতি বছরই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এমনকি বাজারটিতে ময়লা-আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো জায়গা না থাকায় এলাকার কৃষি জমি এবং খালে ময়লার ভাগাড় তৈরি করায় পরিবেশ দূষণের শিকার হচ্ছে। ভূল্লী বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন জানান, বাজারের ড্রেনেজ ব্যবস্থা চরম খারাপ অবস্থায় রয়েছে। পূর্বের একটি ড্রেন ছিলো সেটি এখন বন্ধ। যার কারণে প্রতি বছর ব্যবসায়িদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্নিষ্টদের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি। তিনি বলেন, এ সমস্যা সমাধান করতে হলে বাজারে বড় করে ড্রেন করা প্রয়োজন।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। খোঁজ খবর নিয়ে বাজার উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনে বরাদ্দ দেওয়া হবে এবং বর্ষার আগেই পানি নিষ্কাশনের সমস্যা সমাধান করা হবে।

/শিল্পী/

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

মহাসড়কে জলাবদ্ধতায় পথচারীদের ভোগান্তি

ভূল্লী বাজারে নেই ড্রেনেজ ব্যবস্থা

আপডেট সময় : ০৭:২৮:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

Thakurgaon :

ঠাকুরগাঁওয়ে ভূল্লী থানা বাজারে মহাসড়কে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় গত দু’দিনের বৃষ্টিতে পানি জমে রাস্তা দুই পাশ তলিয়ে গেছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ।

ঐতিহ্যবাহী জনপ্রিয় এই বাজারটি ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কে উপর অবস্থিত হওয়ায় প্রতিনিয়ত বিভিন্ন এলাকা থেকে ছুটে আসেন ক্রেতা ও বিক্রেতারা। এ কারণে কয়েকটি গ্রামের মানুষের কাছে এটি প্রধান বাজার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই দিকে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় মহাসড়কে দুই পাশে খানাখন্দে সড়কটি এখন বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে।

পানি বের হবার কোনো পথ না থাকায় জলাবদ্ধতা রয়েছে সড়কে। দিনের পর দিন পানি জমে থাকার কারণে সড়কের কার্পেটিং উঠে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এতে করে ওই পথ দিয়ে চলাচল পথচারীদের যেমন নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে তেমনি যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় দুই দিনের বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে সড়কের দুই পাশ । পানি বেড় হওয়ার কোনো পথ নেই। এ অবস্থায় ভোগান্তি ও দুর্ভোগ মাথায় নিয়ে প্রতিনিয়ত ওই পানিবন্দি পথ দিয়ে যাতায়াত করছে শতশত পথচারী। জনদুর্ভোগ কমাতে দ্রুত টেকসই ড্রেন নির্মাণ ও সড়ক সংস্কার করা প্রয়োজন।

পথচারী হাসান আলী বলেন, দিনে কয়েকবার এই সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হয়। জলাবদ্ধতার কারণে যাতায়াতে খুব অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। কয়েকদিন আগে একজন চার্জার ভ্যানে যেতে ঝাঁকুনিতে পড়ে চালের দুটি বস্তা ফেটে পানিতে পড়ে নষ্ট হয়। পানিতে রাস্তা ডুবে থাকায় সড়কে ছোট-বড় গর্ত বোঝা যায় না। এতে করে আমাদের বিপদের ঝুঁকি রয়েছে বলে জানায় হাচান আলীসহ অন্যান্য পথচারীরা।

বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, দু’দিনের টানা বৃষ্টির পানির সঙ্গে ময়লা-আবর্জনা মিশে অসহনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ব্যবসায়িসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা ক্রেতারা। প্রতি বছর বাজার ইজারা দিয়ে রাজস্ব আদায় করা হয়ে থাকে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই বাজারে উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই।

পানি নিস্কাশনের জন্য যে ছোট ড্রেনেজ ব্যবস্থা ছিলো সেটি এক দশক আগেই ময়লা-আবর্জনায় বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া অপরিকল্পিতভাবে দোকান নির্মাণ এবং বিভিন্নস্থানে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়ার কারণে প্রতি বছরই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এমনকি বাজারটিতে ময়লা-আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো জায়গা না থাকায় এলাকার কৃষি জমি এবং খালে ময়লার ভাগাড় তৈরি করায় পরিবেশ দূষণের শিকার হচ্ছে। ভূল্লী বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন জানান, বাজারের ড্রেনেজ ব্যবস্থা চরম খারাপ অবস্থায় রয়েছে। পূর্বের একটি ড্রেন ছিলো সেটি এখন বন্ধ। যার কারণে প্রতি বছর ব্যবসায়িদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্নিষ্টদের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি। তিনি বলেন, এ সমস্যা সমাধান করতে হলে বাজারে বড় করে ড্রেন করা প্রয়োজন।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। খোঁজ খবর নিয়ে বাজার উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনে বরাদ্দ দেওয়া হবে এবং বর্ষার আগেই পানি নিষ্কাশনের সমস্যা সমাধান করা হবে।

/শিল্পী/