ঢাকা ০৮:১২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

এসেনসিয়াল ড্রাগসের ৪৭৭ কোটি টাকা লোপাট, তদন্তের নির্দেশ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪৫:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩ ১২৪ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের একমাত্র সরকারি ওষুধ কোম্পানি এসেনসিয়াল ড্রাগসের ৪৭৭ কোটি টাকা লোপাটের ঘটনা অনুসন্ধান করতে দুদককে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুই মাসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। রোববার (১২ মার্চ) বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

২০২০-২১ অর্থবছরে এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডে করা অডিট প্রতিবেদনে ৩২টি গুরুতর অনিয়ম মিলেছে। এতে ৪৭৭ কোটি ৪১ লাখ ৯১ হাজার টাকার বেশি আর্থিক ক্ষতি হয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠানটির।

স্বাস্থ্য অডিট অধিদপ্তরের নিরীক্ষায় যেসব অনিয়ম ধরা পড়েছে, তার মধ্যে নিয়োগ ও টেন্ডার বাণিজ্য, ব্যবহৃত কাঁচামালের চেয়ে ওষুধ উৎপাদন কম দেখানো, গুণগত মানের ওষুধ উৎপাদন না করা, করোনাকালে বন্ধ থাকলেও ক্যানটিনে ভর্তুতির নামে অর্থ আত্মসাত।

একটি জাতীয় দৈনিকে এসেনশিয়াল ড্রাগসের অনিয়মের সংবাদ নজরে আনলে অনুসন্ধান করতে দুদককে নির্দেশ দেন আদালত।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন জানান, কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুর্নীতিতে জড়িত থাকার প্রাথমিক সত্যতা পেলে তাদের বিরুদ্ধে যেকোনো আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষেত্রে বিবাদীদের স্বাধীনতা রয়েছে।

দুদক, এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, স্বাস্থ্যসচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আগামী ১৪ মে পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

এসেনসিয়াল ড্রাগসের ৪৭৭ কোটি টাকা লোপাট, তদন্তের নির্দেশ

আপডেট সময় : ০৯:৪৫:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের একমাত্র সরকারি ওষুধ কোম্পানি এসেনসিয়াল ড্রাগসের ৪৭৭ কোটি টাকা লোপাটের ঘটনা অনুসন্ধান করতে দুদককে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুই মাসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। রোববার (১২ মার্চ) বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

২০২০-২১ অর্থবছরে এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডে করা অডিট প্রতিবেদনে ৩২টি গুরুতর অনিয়ম মিলেছে। এতে ৪৭৭ কোটি ৪১ লাখ ৯১ হাজার টাকার বেশি আর্থিক ক্ষতি হয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠানটির।

স্বাস্থ্য অডিট অধিদপ্তরের নিরীক্ষায় যেসব অনিয়ম ধরা পড়েছে, তার মধ্যে নিয়োগ ও টেন্ডার বাণিজ্য, ব্যবহৃত কাঁচামালের চেয়ে ওষুধ উৎপাদন কম দেখানো, গুণগত মানের ওষুধ উৎপাদন না করা, করোনাকালে বন্ধ থাকলেও ক্যানটিনে ভর্তুতির নামে অর্থ আত্মসাত।

একটি জাতীয় দৈনিকে এসেনশিয়াল ড্রাগসের অনিয়মের সংবাদ নজরে আনলে অনুসন্ধান করতে দুদককে নির্দেশ দেন আদালত।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন জানান, কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুর্নীতিতে জড়িত থাকার প্রাথমিক সত্যতা পেলে তাদের বিরুদ্ধে যেকোনো আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষেত্রে বিবাদীদের স্বাধীনতা রয়েছে।

দুদক, এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, স্বাস্থ্যসচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আগামী ১৪ মে পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত।