ঢাকা ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

জলদস্যুদের কবলে সাব্বির

বাড়িতে স্বজনদের আহাজারি

টাঙ্গাইল প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৩:৩৩:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪ ৭০ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

Sabbir captured by pirates :

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর গ্রামে সাব্বিরের বাড়িতে চলছে স্বজনদের আহাজারি। ভারত মহাসাগরে জলদস্যুদের কবলে পড়ে জিম্মি হয়েছে-এমন খবর পেয়ে স্বজনরা বুক চাপড়িয়ে কাদঁছেন আর বিলাপ করছেন। একমাত্র বোন মিতু আক্তার ভাইয়ের জন্য সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করছেন।

ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবলে এমভি আব্দুল্লাহ নামক পণ্যবহনকারী জাহাজের ২৩ জন নাবিকের মধ্যে রয়েছেন সাব্বির হোসেন। তিনি টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর ইউনিয়নের ডাঙ্গা ধলাপাড়া গ্রামের হারুনুর রশিদের ছেলে। সহবতপুর উচ্চ বিদ্যালয় ২০১৪ সালে এসএসসি পাস করেন।

টাঙ্গাইলের কাগমারি এম এম আলী কলেজ থেকে ২০১৬ সালে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ভর্তি হন চট্টগ্রাম মেরিন একাডেমিতে। সেখান থেকে কৃতিত্বের সাথে পাস করে ২০২২ সালের জুন মাসে এমভি আব্দুল্লাহ নামক পণ্যবহনকারী একটি জাহাজে মার্চেন্ট কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি নেন।

সাব্বিরের বাবা মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে প্যারাইলাইজড হয়ে শয্যাশায়ী। সাব্বিরের চাকরি হওয়ার পর তার মা শয্যাসায়ী স্বামীকে নিয়ে সহবপুর তার বাবার বাড়ি বসবাস করেন। একমাত্র উপার্জনক্ষম সাব্বিরের কিছু হয়ে গেলে তাদের আর চলার উপায় থাকবে না।

সাব্বিরের বোন মিতু আক্তার বলেন, আমার ভাই গত সোমবার বিকেলে ফেসবুকে আপলোড দিয়েছে যে, বিষুব রেখা অতিক্রম করলাম। মাথা ন্যাড়া করে ছবি আপলোড করেছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

এম.নাসির/১৩

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

জলদস্যুদের কবলে সাব্বির

বাড়িতে স্বজনদের আহাজারি

আপডেট সময় : ০৩:৩৩:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

Sabbir captured by pirates :

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর গ্রামে সাব্বিরের বাড়িতে চলছে স্বজনদের আহাজারি। ভারত মহাসাগরে জলদস্যুদের কবলে পড়ে জিম্মি হয়েছে-এমন খবর পেয়ে স্বজনরা বুক চাপড়িয়ে কাদঁছেন আর বিলাপ করছেন। একমাত্র বোন মিতু আক্তার ভাইয়ের জন্য সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করছেন।

ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবলে এমভি আব্দুল্লাহ নামক পণ্যবহনকারী জাহাজের ২৩ জন নাবিকের মধ্যে রয়েছেন সাব্বির হোসেন। তিনি টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর ইউনিয়নের ডাঙ্গা ধলাপাড়া গ্রামের হারুনুর রশিদের ছেলে। সহবতপুর উচ্চ বিদ্যালয় ২০১৪ সালে এসএসসি পাস করেন।

টাঙ্গাইলের কাগমারি এম এম আলী কলেজ থেকে ২০১৬ সালে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ভর্তি হন চট্টগ্রাম মেরিন একাডেমিতে। সেখান থেকে কৃতিত্বের সাথে পাস করে ২০২২ সালের জুন মাসে এমভি আব্দুল্লাহ নামক পণ্যবহনকারী একটি জাহাজে মার্চেন্ট কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি নেন।

সাব্বিরের বাবা মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে প্যারাইলাইজড হয়ে শয্যাশায়ী। সাব্বিরের চাকরি হওয়ার পর তার মা শয্যাসায়ী স্বামীকে নিয়ে সহবপুর তার বাবার বাড়ি বসবাস করেন। একমাত্র উপার্জনক্ষম সাব্বিরের কিছু হয়ে গেলে তাদের আর চলার উপায় থাকবে না।

সাব্বিরের বোন মিতু আক্তার বলেন, আমার ভাই গত সোমবার বিকেলে ফেসবুকে আপলোড দিয়েছে যে, বিষুব রেখা অতিক্রম করলাম। মাথা ন্যাড়া করে ছবি আপলোড করেছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

এম.নাসির/১৩