ঢাকা ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

তিন দিনের ছুটি নিয়ে ৪২ দিন অনুপস্থিত

প্রভাষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অধ্যক্ষের আবেদন মাউশিতে

গাজীপুর প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৪:১৯:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ ২০২৪ ১২৫ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
Principal's application :

তিন দিনের ছুটি নিয়ে ৪২ দিন ধরে অনুপস্থিত থাকায় গাজীপুরের কালিয়াকৈরের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের প্রভাষক তোফায়েল আহমেদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে মাউশিতে আবেদন করেছে অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম।

গতকাল বুধবার (৬ মার্চ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে এই আবেদন করেন ওই কলেজের অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম।

অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম বলেন, প্রভাষক তোফায়েল আহমেদ তিন দিনের ছুটি নিয়েছিলেন। পরে ৪২ দিন পার হয়ে গেলেও তিনি আর কলেজে আসেননি। একপর্যায়ে কলেজ দপ্তরীর মাধ্যমে তিনটি শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়।

‘কোনো নোটিশের জবাব না পেয়ে ডাকযোগে নোটিশ পাঠানো হয়। সেখানে তার স্বজনেরা লিখে দেন, তোফায়েল আহমেদ দেশের বাহিরে থাকায় চিঠি গ্রহণ করা হয়নি।’

তিনি বলেন, শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের কোনো সারা না পেয়ে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে আবেদন করা হয়েছে।

এম.নাসির/৭

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

তিন দিনের ছুটি নিয়ে ৪২ দিন অনুপস্থিত

প্রভাষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অধ্যক্ষের আবেদন মাউশিতে

আপডেট সময় : ০৪:১৯:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ ২০২৪
Principal's application :

তিন দিনের ছুটি নিয়ে ৪২ দিন ধরে অনুপস্থিত থাকায় গাজীপুরের কালিয়াকৈরের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের প্রভাষক তোফায়েল আহমেদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে মাউশিতে আবেদন করেছে অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম।

গতকাল বুধবার (৬ মার্চ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে এই আবেদন করেন ওই কলেজের অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম।

অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম বলেন, প্রভাষক তোফায়েল আহমেদ তিন দিনের ছুটি নিয়েছিলেন। পরে ৪২ দিন পার হয়ে গেলেও তিনি আর কলেজে আসেননি। একপর্যায়ে কলেজ দপ্তরীর মাধ্যমে তিনটি শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়।

‘কোনো নোটিশের জবাব না পেয়ে ডাকযোগে নোটিশ পাঠানো হয়। সেখানে তার স্বজনেরা লিখে দেন, তোফায়েল আহমেদ দেশের বাহিরে থাকায় চিঠি গ্রহণ করা হয়নি।’

তিনি বলেন, শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের কোনো সারা না পেয়ে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে আবেদন করা হয়েছে।

এম.নাসির/৭