ঢাকা ০৮:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪

চলমান থাকবে ৬ মাসের সাজা

ড. ইউনূসকে বিদেশ যেতে হলে আদালতকে অবহিত করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০২:৩০:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪ ১১২ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
Dr. Yunus :

নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ গ্রামীণ টেলিকমের চার শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ৬ মাসের সাজার রায় ও তা স্থগিতের আদেশ অবৈধ বলে বাতিল করেছেন হাইকোর্ট। এর ফলে ড. ইউনূসের ৬ মাসের সাজা চলমান থাকবে। সেই সঙ্গেড. মুহাম্মদ ইউনূসকে বিদেশ যেতে আদালতকে অবহিত করতে হবে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার (১৮ মার্চ) বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ইউনূসের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন। কলকারখানা অধিদপ্তরের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

এদিকে মুহাম্মদ ইউনূসের বিচার নিয়ে বিদেশি কূটনীতিকদের বক্তব্য দেয়ার ক্ষেত্রে সচেতন থাকা উচিৎ বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্ট জানতে চান, কোনো বিদেশি কুটনীতিক যদি বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিচার নিয়ে মন্তব্য করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার উপায় আছে কিনা। জবাবে কলকারখানার আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া যাবে।’

খুরশীদ আলম খান হাইকোর্টকে আরও বলেন, ‘ড. ইউনূসের মামলা নিয়ে পিটাস হাস যে স্টেটমেন্ট দিয়েছেন, তা আদালত অবমাননার শামিল। আমি তাকে আদালতে হাজির করার জন্য বা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা চাচ্ছি না। তবে জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী সরকার তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে পারে। তারপরও বিষয়টি কোর্টের ওপর ছেড়ে দিলাম।’

এ সময় ড. ইউনূসের আইনজীবী ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন হাইকোর্টকে বলেন, ‘বাদীপক্ষের আইনজীবী কোর্টের মাথায় লবণ রেখে বরই খেতে চান। পিটার হাসের বিরুদ্ধে যদি ব্যবস্থা নিতে হয়, তাহলে জতিসংঘ, শান্তিতে নোবেলবিজয়ী ও বিশ্বের বিশিষ্ট নাগরিক যারা ইউনূসের মামলা নিয়ে বক্তব্য বিবৃতি দিয়েছেন, তাদেরকেও এ মামলায় আনতে হবে। আর এটা করলে কী হবে, তা সবাই জানে। বাদীপক্ষের আইনজীবী কোন রকম ট্রেনিং ছাড়াই মামলা পরিচালনা করছে।

এম.নাসির/১৮

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

চলমান থাকবে ৬ মাসের সাজা

ড. ইউনূসকে বিদেশ যেতে হলে আদালতকে অবহিত করতে হবে

আপডেট সময় : ০২:৩০:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪
Dr. Yunus :

নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ গ্রামীণ টেলিকমের চার শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ৬ মাসের সাজার রায় ও তা স্থগিতের আদেশ অবৈধ বলে বাতিল করেছেন হাইকোর্ট। এর ফলে ড. ইউনূসের ৬ মাসের সাজা চলমান থাকবে। সেই সঙ্গেড. মুহাম্মদ ইউনূসকে বিদেশ যেতে আদালতকে অবহিত করতে হবে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার (১৮ মার্চ) বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ইউনূসের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন। কলকারখানা অধিদপ্তরের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

এদিকে মুহাম্মদ ইউনূসের বিচার নিয়ে বিদেশি কূটনীতিকদের বক্তব্য দেয়ার ক্ষেত্রে সচেতন থাকা উচিৎ বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্ট জানতে চান, কোনো বিদেশি কুটনীতিক যদি বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিচার নিয়ে মন্তব্য করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার উপায় আছে কিনা। জবাবে কলকারখানার আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া যাবে।’

খুরশীদ আলম খান হাইকোর্টকে আরও বলেন, ‘ড. ইউনূসের মামলা নিয়ে পিটাস হাস যে স্টেটমেন্ট দিয়েছেন, তা আদালত অবমাননার শামিল। আমি তাকে আদালতে হাজির করার জন্য বা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা চাচ্ছি না। তবে জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী সরকার তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে পারে। তারপরও বিষয়টি কোর্টের ওপর ছেড়ে দিলাম।’

এ সময় ড. ইউনূসের আইনজীবী ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন হাইকোর্টকে বলেন, ‘বাদীপক্ষের আইনজীবী কোর্টের মাথায় লবণ রেখে বরই খেতে চান। পিটার হাসের বিরুদ্ধে যদি ব্যবস্থা নিতে হয়, তাহলে জতিসংঘ, শান্তিতে নোবেলবিজয়ী ও বিশ্বের বিশিষ্ট নাগরিক যারা ইউনূসের মামলা নিয়ে বক্তব্য বিবৃতি দিয়েছেন, তাদেরকেও এ মামলায় আনতে হবে। আর এটা করলে কী হবে, তা সবাই জানে। বাদীপক্ষের আইনজীবী কোন রকম ট্রেনিং ছাড়াই মামলা পরিচালনা করছে।

এম.নাসির/১৮