ঢাকা ১০:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

ঘূর্ণিঝড় রিমাল আঘাত

চার দিনে সুন্দরবনে হরিণসহ ৫৬ প্রাণীর মৃতদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৯:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪ ৩৩ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

Sundarbans in four days:

ঘূর্ণিঝড় রিমাল আঘাত হানার পর দিন সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বনের বিভিন্ন স্থান থেকে হরিণসহ ৫৬ বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বনের ভেতর আরও প্রাণীর মৃতদেহ থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ জানায়, জলোচ্ছ্বাসে টানা প্রায় ৩৮ ঘণ্টা সুন্দরবন ডুবে থাকায় বন্যপ্রাণীর ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত হরিণসহ ৫৬টি বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে বুধ ও বৃহস্পতিবার পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের কচিখালী এলাকা থেকে ভেসে আসা ১৫টি হরিণ ও একটি শূকরের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এগুলো কটকা অভয়ারণ্য এলাকায় মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ১৭টি আহত হরিণ উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বনে অবমুক্ত করা হয়েছে।

খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক (সিএফ) মিহির কুমার দে বলেন, ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের পর গত চার দিনে ৫৪টি হরিণ এবং দুটি শূকর মিলিয়ে ৫৬টি বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ পেয়েছি। প্রতিদিনই প্রাণীদের মৃতদেহ পাওয়া যাচ্ছে।

এম.নাসির/৩০

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ঘূর্ণিঝড় রিমাল আঘাত

চার দিনে সুন্দরবনে হরিণসহ ৫৬ প্রাণীর মৃতদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৭:৩৯:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

Sundarbans in four days:

ঘূর্ণিঝড় রিমাল আঘাত হানার পর দিন সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বনের বিভিন্ন স্থান থেকে হরিণসহ ৫৬ বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বনের ভেতর আরও প্রাণীর মৃতদেহ থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ জানায়, জলোচ্ছ্বাসে টানা প্রায় ৩৮ ঘণ্টা সুন্দরবন ডুবে থাকায় বন্যপ্রাণীর ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত হরিণসহ ৫৬টি বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে বুধ ও বৃহস্পতিবার পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের কচিখালী এলাকা থেকে ভেসে আসা ১৫টি হরিণ ও একটি শূকরের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এগুলো কটকা অভয়ারণ্য এলাকায় মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ১৭টি আহত হরিণ উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বনে অবমুক্ত করা হয়েছে।

খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক (সিএফ) মিহির কুমার দে বলেন, ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের পর গত চার দিনে ৫৪টি হরিণ এবং দুটি শূকর মিলিয়ে ৫৬টি বন্যপ্রাণীর মৃতদেহ পেয়েছি। প্রতিদিনই প্রাণীদের মৃতদেহ পাওয়া যাচ্ছে।

এম.নাসির/৩০