ঢাকা ০১:২৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

সারা শরীর ব্যথা করে কেন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৮:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪ ১৯৪৭ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সারা শরীরে ব্যথা হলে মনে করতে হবে তার কোনো না কোনো রোগ হচ্ছে। এটি বিভিন্ন রোগের একটি সাধারণ উপসর্গ। তাই একে অবহেলা না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

সারা শরীর ব্যথা করে কেন
ফাইল ফটো

ইনফেকশন

ভাইরাসঘটিত ইনফেকশন যখন শরীরকে আক্রমণ করে এবং দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাও এদেরকে তাড়ানোর চেষ্টা করে। এই সব কারণেও ব্যথা হতে পারে-কারণ শরীর তখন ইনফেকশনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে।

রক্তস্বল্পতা

শরীরে লোহিত রক্তকণিকার অভাব হলে অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতা হয়। অ্যানিমিয়া হলে দেহের টিস্যু পর্যাপ্ত অক্সিজেন পায় না। রক্তস্বল্পতা হলেও অনেক সময় শরীর ব্যথা হয়।

ভিটামিন ডি

শরীরে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি হলে রক্তে ক্যালসিয়ামের অভাব হয়ে থাকে। হাড়ের সুস্থতার জন্যও ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন রয়েছে। পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি-এর অভাবে ক্যালসিয়াম শোষিত হয় না যার ফলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ ও হাড়ে ব্যথা হয়।

মনোনিউক্লিওসিস

মনোনিউক্লিওসিস মনো নামে বেশ পরিচিত। মুখের লালার মাধ্যমে এটি ছড়ায়। তাই একে চুম্বন রোগও বলে। এটি একপ্রকার ইনফেকশন যা এপস্টেইন-বার নামক ভাইরাসের কারণে হয়ে থাকে। এটি খুব ছোঁয়াচে। এর সবচেয়ে কমন উপসর্গ হচ্ছে শরীর ব্যথা।

ফাইব্রোমায়ালজিয়া

ফাইব্রোমায়ালজিয়া হলে পুরো শরীর বা শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা ও সংবেদনশীল হতে পারে।

দীর্ঘস্থায়ী ক্লান্তি

ক্রনিক ফ্যাটিক সিনড্রোম হলে আপনি ক্লান্ত ও দুর্বল হয়ে যাবেন। বেশি বিশ্রাম বা ঘুমিয়েও ক্লান্তি ও দুর্বলতা দূর করা যায় না। এ রোগ শরীরকে অবসাদগ্রস্ত রাখে বলে পেশি ও জয়েন্টে ব্যথা হতে পারে।

লুপাস

শরীরের নিজস্ব রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থা দ্বারা শরীরের টিস্যু আক্রান্ত বা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াকে লুপাস বলে। এর ফলে দেহের যেকোনো অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ক্ষতি হতে পারে। এ রোগের একটি সাধারণ উপসর্গ হচ্ছে শরীর ব্যথা।

উদ্বেগ

উদ্বেগে থাকলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়ে। এর ফলে শরীর সংক্রমণ বা ব্যাধির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারে না। ফলে শরীরে ব্যথা অনুভূত হয়।

ডিহাইড্রেশন

শরীরকে স্বাভাবিক ও সুস্থ রাখতে পানি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এটি ছাড়া শরীর গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া (যেমন- শ্বাসক্রিয়া, পরিপাকক্রিয়া ইত্যাদি) সম্পন্ন করতে পারে না। যথেষ্ট পরিমাণ পানির অভাবেও শরীর ব্যথা হতে পারে।

ঘুমের অভাব

পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব সার্বিক স্বাস্থ্যে প্রভাব পড়বে। প্রতিরাতে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। ঘুম ছাড়া শরীর বিশ্রাম নিতে পারে না এবং প্রয়োজনীয় শক্তি ও প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন হতে পারে না। এই কারণেও শরীর ব্যথা হতে পারে। এছাড়াও আরো অনেক কারণ থাকতে পারে।

আরও পড়ুন:

হাঁটুর ব্যথা সারানোর উপায়

এম.নাসির/২৫

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

সারা শরীর ব্যথা করে কেন

আপডেট সময় : ০৭:৪৮:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

সারা শরীরে ব্যথা হলে মনে করতে হবে তার কোনো না কোনো রোগ হচ্ছে। এটি বিভিন্ন রোগের একটি সাধারণ উপসর্গ। তাই একে অবহেলা না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

সারা শরীর ব্যথা করে কেন
ফাইল ফটো

ইনফেকশন

ভাইরাসঘটিত ইনফেকশন যখন শরীরকে আক্রমণ করে এবং দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাও এদেরকে তাড়ানোর চেষ্টা করে। এই সব কারণেও ব্যথা হতে পারে-কারণ শরীর তখন ইনফেকশনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে।

রক্তস্বল্পতা

শরীরে লোহিত রক্তকণিকার অভাব হলে অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতা হয়। অ্যানিমিয়া হলে দেহের টিস্যু পর্যাপ্ত অক্সিজেন পায় না। রক্তস্বল্পতা হলেও অনেক সময় শরীর ব্যথা হয়।

ভিটামিন ডি

শরীরে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি হলে রক্তে ক্যালসিয়ামের অভাব হয়ে থাকে। হাড়ের সুস্থতার জন্যও ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন রয়েছে। পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি-এর অভাবে ক্যালসিয়াম শোষিত হয় না যার ফলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ ও হাড়ে ব্যথা হয়।

মনোনিউক্লিওসিস

মনোনিউক্লিওসিস মনো নামে বেশ পরিচিত। মুখের লালার মাধ্যমে এটি ছড়ায়। তাই একে চুম্বন রোগও বলে। এটি একপ্রকার ইনফেকশন যা এপস্টেইন-বার নামক ভাইরাসের কারণে হয়ে থাকে। এটি খুব ছোঁয়াচে। এর সবচেয়ে কমন উপসর্গ হচ্ছে শরীর ব্যথা।

ফাইব্রোমায়ালজিয়া

ফাইব্রোমায়ালজিয়া হলে পুরো শরীর বা শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা ও সংবেদনশীল হতে পারে।

দীর্ঘস্থায়ী ক্লান্তি

ক্রনিক ফ্যাটিক সিনড্রোম হলে আপনি ক্লান্ত ও দুর্বল হয়ে যাবেন। বেশি বিশ্রাম বা ঘুমিয়েও ক্লান্তি ও দুর্বলতা দূর করা যায় না। এ রোগ শরীরকে অবসাদগ্রস্ত রাখে বলে পেশি ও জয়েন্টে ব্যথা হতে পারে।

লুপাস

শরীরের নিজস্ব রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থা দ্বারা শরীরের টিস্যু আক্রান্ত বা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াকে লুপাস বলে। এর ফলে দেহের যেকোনো অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ক্ষতি হতে পারে। এ রোগের একটি সাধারণ উপসর্গ হচ্ছে শরীর ব্যথা।

উদ্বেগ

উদ্বেগে থাকলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়ে। এর ফলে শরীর সংক্রমণ বা ব্যাধির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারে না। ফলে শরীরে ব্যথা অনুভূত হয়।

ডিহাইড্রেশন

শরীরকে স্বাভাবিক ও সুস্থ রাখতে পানি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এটি ছাড়া শরীর গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া (যেমন- শ্বাসক্রিয়া, পরিপাকক্রিয়া ইত্যাদি) সম্পন্ন করতে পারে না। যথেষ্ট পরিমাণ পানির অভাবেও শরীর ব্যথা হতে পারে।

ঘুমের অভাব

পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব সার্বিক স্বাস্থ্যে প্রভাব পড়বে। প্রতিরাতে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। ঘুম ছাড়া শরীর বিশ্রাম নিতে পারে না এবং প্রয়োজনীয় শক্তি ও প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন হতে পারে না। এই কারণেও শরীর ব্যথা হতে পারে। এছাড়াও আরো অনেক কারণ থাকতে পারে।

আরও পড়ুন:

হাঁটুর ব্যথা সারানোর উপায়

এম.নাসির/২৫