ঢাকা ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

গোপনে জানান মনের কথা, সিক্রেট মেসেজ অ্যাপ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৮:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩ ১৬২ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক

একটা সময় মোবাইল এসএমএসের আলাদা একটা কদর ছিল। স্মার্টফোন এসে এসএমএসের সেই যুগকে পুরোপুরি বদলে দিয়েছে। এসএমএসের জায়গা দখল করে নিয়েছে মেসেজিং অ্যাপ।

মেসেজিং অ্যাপ বললেই সবার আগে মাথায় আসে হোয়াটসঅ্যাপের নাম। মেটার নিয়ন্ত্রণাধীন অ্যাপটিতে রয়েছে একগুচ্ছ ফিচার। বর্তমানে অফিস থেকে শুরু করে দৈনন্দিন জীবনে হোয়াটসঅ্যাপ এক অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন ফিচার নিয়ে আসছে হোয়াটসঅ্যাপ। যা তার জনপ্রিয়তাকে দিন দিন বাড়িয়ে দিচ্ছে।

তবে হোয়াসঅ্যাপ ছাড়াও আপনার মেসেজকে সিকিউর রাখতে রয়েছে আরও কিছু মেসেজিং অ্যাপ। যেগুলোতে মেসেজের নিরাপত্তার পাশাপাশি রয়েছে একগুচ্ছ ফিচারও।

নিরাপত্তার সঙ্গে বজায় থাকবে গোপনীয়তাও, সেরা প্রাইভেট মেসেজিং অ্যাপ গুলো সম্পর্কে জেনে নিন-

সিগন্যাল:

সিক্রেট মেসেজিং অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম সিগন্যাল প্রাইভেট মেসেঞ্জার। এ অ্যাপেও রয়েছে অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন। এখানেও সিলড সেন্ডার (সিগন্যাল ডিভাইসড প্রযুক্তি) ব্যবহার করা হয়েছে, যা এ মেসেঞ্জার অ্যাপকে আরও নিরাপদ করে তুলেছে। এ অ্যাপে কাউকে মেসেজ করলে তা অন্য কেউ জানতে পারবে না। এমন কি সিগন্যালের কানেও এ খবর যাবে না। সেই সঙ্গে টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশনের সুযোগ তো রয়েছেই। রয়েছে স্ক্রিনশটও ব্লক করার সুযোগও। ছবি পাঠানোর ক্ষেত্রেও রয়েছে অধিক নিরাপত্তা। এ অ্যাপে ছবি পাঠানোর আগে মুখ ব্লার হয়ে যায় নিজে থেকেই। এই ফিচারটি সম্প্রতি এ অ্যাপে যুক্ত করা হয়েছে।

সেশন:

সেশন অ্যাপে কোনো ইমেইল বা ফোন নম্বর দিয়ে লগইন না করেই মেসেজ পাঠানো যায়। এ অ্যাপটিতে টরের (অনলাইন গোপনীয়তা এবং স্বাধীনতার জন্য বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী টুলের বিকাশকারী) মতো ডিসেন্ট্রালাইজড রাউটিং নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয়েছে। এটিতেও অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন সুবিধা রয়ছে। শুধু মেসেজই নয়, অডিও এবং ভিডিও কলও করতে পারেন এই অ্যাপটির মাধ্যমে। যার সবকিছুই থাকবে কঠোর নিরাপত্তায়।

টেলিগ্রাম:

বলা হয়ে থাকে টেলিগ্রাম হলো হোয়াটসঅ্যাপের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী। এ অ্যাপে রয়েছে কিছু সিক্রেট (গোপন) চ্যাট ফিচার। সঙ্গে রয়েছে এনক্রিপশন ফিচার সুবিধাও। তবে তা অ্যান্ড টু অ্যান্ড নয়। সিক্রেট চ্যাট ফিচার ছাড়াও স্ট্যান্ডার্ড এনক্রিপশন ফিচার এ অ্যাপের সকল ডেটার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। বড় গ্রুপ চ্যাট, ব্রডকাস্ট, বড় আকারের ফাইল শেয়ারের মতো একাধিক সুবিধা রয়েছে এই অ্যাপটিতে।

ওলভিড:

আরেকটি একটি ওপেন সোর্স মেসেজিং অ্যাপ ওলভিড। যাতে রয়েছে অসাধারণ কিছু ফিচার। তবে এ অ্যাপটিরও প্রধান ফোকাস নিরাপত্তার দিকেই। এখানেও রয়েছে এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন সুবিধা। কোনো ফোন নম্বর বা ইমেইল আইডির ছাড়াই এ অ্যাপে লগ ইন করা যায়। কিউআর কোডের মাধ্যমে পাঠানো যাবে মেসেজ রিকোয়েস্টও। এ অ্যাপে আপনি সংযুক্ত না হওয়া পর্যন্ত কেউ আপনাকে মেসেজ করতে পারবে না। গ্রুপ তৈরির মতো একাধিক ফিচারও রয়েছে অ্যাপটিতে। যদি আপনার মেসেজের স্ক্রিনশট কেউ নেয় তাহলে অ্যাপটি আপনাকে তা জানিয়ে দেবে। এ অ্যাপের একটি অসুবিধা হলো এটিতে ভিডিও কল সুবিধা নেই।

ওয়্যার:

ওয়্যার হলো আইওএস (একটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম) ও অ্যান্ড্রয়েডের জন্য একটি সিক্রেট মেসেজিং অ্যাপ। এখানেও রয়েছে অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন সুবিধা। অফিস কিংবা ব্যক্তিগত ব্যবহার, সব ক্ষেত্রেই দুর্দান্ত এই অ্যাপটি। এ অ্যাপটি সুইজারল্যান্ডভিত্তিক এ সংস্থাটি ইউরোপীয় ইউনিয়ন নির্ধারিক নিরাপত্তা বিধান মেনে তৈরি হয়েছে। সর্বনিম্ন ডাটা খরচ ও নিরাপদ মেসেজিংয়ের জন্য এটি একটি আদর্শ অ্যাপ। এখানে সিক্রেট অ্যাপ ফিচারও রয়েছে। এ অ্যাপটি ডেস্কটপেও ব্যবহার করা যায়।

রইস/৮

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

গোপনে জানান মনের কথা, সিক্রেট মেসেজ অ্যাপ

আপডেট সময় : ০৯:৫৮:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক

একটা সময় মোবাইল এসএমএসের আলাদা একটা কদর ছিল। স্মার্টফোন এসে এসএমএসের সেই যুগকে পুরোপুরি বদলে দিয়েছে। এসএমএসের জায়গা দখল করে নিয়েছে মেসেজিং অ্যাপ।

মেসেজিং অ্যাপ বললেই সবার আগে মাথায় আসে হোয়াটসঅ্যাপের নাম। মেটার নিয়ন্ত্রণাধীন অ্যাপটিতে রয়েছে একগুচ্ছ ফিচার। বর্তমানে অফিস থেকে শুরু করে দৈনন্দিন জীবনে হোয়াটসঅ্যাপ এক অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন ফিচার নিয়ে আসছে হোয়াটসঅ্যাপ। যা তার জনপ্রিয়তাকে দিন দিন বাড়িয়ে দিচ্ছে।

তবে হোয়াসঅ্যাপ ছাড়াও আপনার মেসেজকে সিকিউর রাখতে রয়েছে আরও কিছু মেসেজিং অ্যাপ। যেগুলোতে মেসেজের নিরাপত্তার পাশাপাশি রয়েছে একগুচ্ছ ফিচারও।

নিরাপত্তার সঙ্গে বজায় থাকবে গোপনীয়তাও, সেরা প্রাইভেট মেসেজিং অ্যাপ গুলো সম্পর্কে জেনে নিন-

সিগন্যাল:

সিক্রেট মেসেজিং অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম সিগন্যাল প্রাইভেট মেসেঞ্জার। এ অ্যাপেও রয়েছে অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন। এখানেও সিলড সেন্ডার (সিগন্যাল ডিভাইসড প্রযুক্তি) ব্যবহার করা হয়েছে, যা এ মেসেঞ্জার অ্যাপকে আরও নিরাপদ করে তুলেছে। এ অ্যাপে কাউকে মেসেজ করলে তা অন্য কেউ জানতে পারবে না। এমন কি সিগন্যালের কানেও এ খবর যাবে না। সেই সঙ্গে টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশনের সুযোগ তো রয়েছেই। রয়েছে স্ক্রিনশটও ব্লক করার সুযোগও। ছবি পাঠানোর ক্ষেত্রেও রয়েছে অধিক নিরাপত্তা। এ অ্যাপে ছবি পাঠানোর আগে মুখ ব্লার হয়ে যায় নিজে থেকেই। এই ফিচারটি সম্প্রতি এ অ্যাপে যুক্ত করা হয়েছে।

সেশন:

সেশন অ্যাপে কোনো ইমেইল বা ফোন নম্বর দিয়ে লগইন না করেই মেসেজ পাঠানো যায়। এ অ্যাপটিতে টরের (অনলাইন গোপনীয়তা এবং স্বাধীনতার জন্য বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী টুলের বিকাশকারী) মতো ডিসেন্ট্রালাইজড রাউটিং নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয়েছে। এটিতেও অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন সুবিধা রয়ছে। শুধু মেসেজই নয়, অডিও এবং ভিডিও কলও করতে পারেন এই অ্যাপটির মাধ্যমে। যার সবকিছুই থাকবে কঠোর নিরাপত্তায়।

টেলিগ্রাম:

বলা হয়ে থাকে টেলিগ্রাম হলো হোয়াটসঅ্যাপের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী। এ অ্যাপে রয়েছে কিছু সিক্রেট (গোপন) চ্যাট ফিচার। সঙ্গে রয়েছে এনক্রিপশন ফিচার সুবিধাও। তবে তা অ্যান্ড টু অ্যান্ড নয়। সিক্রেট চ্যাট ফিচার ছাড়াও স্ট্যান্ডার্ড এনক্রিপশন ফিচার এ অ্যাপের সকল ডেটার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। বড় গ্রুপ চ্যাট, ব্রডকাস্ট, বড় আকারের ফাইল শেয়ারের মতো একাধিক সুবিধা রয়েছে এই অ্যাপটিতে।

ওলভিড:

আরেকটি একটি ওপেন সোর্স মেসেজিং অ্যাপ ওলভিড। যাতে রয়েছে অসাধারণ কিছু ফিচার। তবে এ অ্যাপটিরও প্রধান ফোকাস নিরাপত্তার দিকেই। এখানেও রয়েছে এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন সুবিধা। কোনো ফোন নম্বর বা ইমেইল আইডির ছাড়াই এ অ্যাপে লগ ইন করা যায়। কিউআর কোডের মাধ্যমে পাঠানো যাবে মেসেজ রিকোয়েস্টও। এ অ্যাপে আপনি সংযুক্ত না হওয়া পর্যন্ত কেউ আপনাকে মেসেজ করতে পারবে না। গ্রুপ তৈরির মতো একাধিক ফিচারও রয়েছে অ্যাপটিতে। যদি আপনার মেসেজের স্ক্রিনশট কেউ নেয় তাহলে অ্যাপটি আপনাকে তা জানিয়ে দেবে। এ অ্যাপের একটি অসুবিধা হলো এটিতে ভিডিও কল সুবিধা নেই।

ওয়্যার:

ওয়্যার হলো আইওএস (একটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম) ও অ্যান্ড্রয়েডের জন্য একটি সিক্রেট মেসেজিং অ্যাপ। এখানেও রয়েছে অ্যান্ড টু অ্যান্ড এনক্রিপশন সুবিধা। অফিস কিংবা ব্যক্তিগত ব্যবহার, সব ক্ষেত্রেই দুর্দান্ত এই অ্যাপটি। এ অ্যাপটি সুইজারল্যান্ডভিত্তিক এ সংস্থাটি ইউরোপীয় ইউনিয়ন নির্ধারিক নিরাপত্তা বিধান মেনে তৈরি হয়েছে। সর্বনিম্ন ডাটা খরচ ও নিরাপদ মেসেজিংয়ের জন্য এটি একটি আদর্শ অ্যাপ। এখানে সিক্রেট অ্যাপ ফিচারও রয়েছে। এ অ্যাপটি ডেস্কটপেও ব্যবহার করা যায়।

রইস/৮