ঢাকা ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

শিক্ষকের গুলিতে মেডিকেল কলেজের ছাত্র আহত

সিরাজগঞ্জ প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৪:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪ ১৩০ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
Teacher shot :

শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে আরাফাত আমিন তমাল নামের এক শিক্ষার্থীকে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে মেডিকেলের সকল শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করছে।

আজ সোমবার (৪ মার্চ) বিকেল ৪টার দিকে শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন আইটেম ক্লাশ চলাকালীন সময়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সূত্রে জানা যায়, ডা. রায়হান শরিফ বিভিন্ন সময়ে ছাত্র-ছাত্রীদের কুপ্রস্তাব ও ভয়ভীতি দেখিয়ে আসতেন। এ বিষয়ে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ দিলেও কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এমনিক ডা. রায়হান শরিফ কমিউনিটি মেডিসিনের শিক্ষক হওয়া সত্ত্বেও তার নিজস্ব ক্ষমতা বলে ফরেনসিক বিভাগে ক্লাস নিতেন। ক্লাস চলাকালীন সময় ছাড়াও প্রায় সময়ই তিনি পিস্তল নিয়ে চলাফেরা করতেন।

সোমবার বিকেলে ক্লাস চলাকালীন সময়ে দেশিয় পিস্তল ও ১০ থেকে ১৩টি দেশীয় ধারালো চাকু নিয়ে হঠাৎ করে ক্লাসের সময় ৩য় বর্ষের ছাত্র আরাফাত আমিন তমালকে গুলি করেন। তার চিৎকারে সবাই এগিয়ে এসে ডা. রায়হান শরিফকে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়।

এদিকে আহত অবস্থায় তমালকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে মেডিকেলের ছাত্র-ছাত্রী আন্দোলন করছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ভাইভা চলাকালীন ৪৫ জন শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে শিক্ষক রায়হান শরিফ তমালের ডান পায়ে গুলি করেন। ওই শিক্ষকের শাস্তি দাবিতে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেয়। পরে তমালকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জুলহাজ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ওই শিক্ষক প্রতিদিন ক্লাসে পিস্তল নিয়ে আসতেন। বিকেল ৫টার দিকে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর কথা কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায়ে ওই শিক্ষক রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে গুলি ছোড়ে। এ সময় গুলিতে আহত হন শিক্ষার্থী আরাফাত আমিন। এ ঘটনার পর ওই শিক্ষককে হেফাজতে নেয়া হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এম.নাসির/৪

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

শিক্ষকের গুলিতে মেডিকেল কলেজের ছাত্র আহত

আপডেট সময় : ০৬:৫৪:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪
Teacher shot :

শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে আরাফাত আমিন তমাল নামের এক শিক্ষার্থীকে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে মেডিকেলের সকল শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করছে।

আজ সোমবার (৪ মার্চ) বিকেল ৪টার দিকে শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন আইটেম ক্লাশ চলাকালীন সময়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সূত্রে জানা যায়, ডা. রায়হান শরিফ বিভিন্ন সময়ে ছাত্র-ছাত্রীদের কুপ্রস্তাব ও ভয়ভীতি দেখিয়ে আসতেন। এ বিষয়ে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ দিলেও কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এমনিক ডা. রায়হান শরিফ কমিউনিটি মেডিসিনের শিক্ষক হওয়া সত্ত্বেও তার নিজস্ব ক্ষমতা বলে ফরেনসিক বিভাগে ক্লাস নিতেন। ক্লাস চলাকালীন সময় ছাড়াও প্রায় সময়ই তিনি পিস্তল নিয়ে চলাফেরা করতেন।

সোমবার বিকেলে ক্লাস চলাকালীন সময়ে দেশিয় পিস্তল ও ১০ থেকে ১৩টি দেশীয় ধারালো চাকু নিয়ে হঠাৎ করে ক্লাসের সময় ৩য় বর্ষের ছাত্র আরাফাত আমিন তমালকে গুলি করেন। তার চিৎকারে সবাই এগিয়ে এসে ডা. রায়হান শরিফকে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়।

এদিকে আহত অবস্থায় তমালকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে মেডিকেলের ছাত্র-ছাত্রী আন্দোলন করছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ভাইভা চলাকালীন ৪৫ জন শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে শিক্ষক রায়হান শরিফ তমালের ডান পায়ে গুলি করেন। ওই শিক্ষকের শাস্তি দাবিতে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেয়। পরে তমালকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জুলহাজ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ওই শিক্ষক প্রতিদিন ক্লাসে পিস্তল নিয়ে আসতেন। বিকেল ৫টার দিকে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর কথা কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায়ে ওই শিক্ষক রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে গুলি ছোড়ে। এ সময় গুলিতে আহত হন শিক্ষার্থী আরাফাত আমিন। এ ঘটনার পর ওই শিক্ষককে হেফাজতে নেয়া হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এম.নাসির/৪