ঢাকা ১২:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার

আওয়ামী লী‌গ নেতার গুলিতে কুষ্টিয়ায় দুজন আহত

কুষ্টিয়া প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৫:৪৩:২২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ৩৯ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
Awami League leader :

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুষ্টিয়ার মিরপুরে আওয়ামী লী‌গ নেতার গুলিতে দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের শিমুলিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত দুজন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ১০ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এ ঘটনায় মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ফুলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আতাহার আলীসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ।

আহতরা হলেন মিরপুর উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের শিমুলিয়া গ্রামের হাসেম গাজী (৫৫) ও বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের রেজাউল ইসলাম (৪৫)। হাসেম কৃষিকাজ করেন এবং রেজাউল ভ্যানচালক।

আহতদের স্বজন ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। গতকাল সন্ধ্যা ৭টার দিকে প্রতিপক্ষের আতাহার আলী ও তার লোকজন এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। তারা হাসেম গাজীকে গুলি করে গুরুতর আহত করেন। এ সময় রেজাউল নামের এক ভ্যানচালকও গুলিবিদ্ধ হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন আহতদের স্বজনরা।

আহত হাসেম, রেজাউল ও তার স্বজনরা জানান, আতাহার আলী প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়ে বেড়ান। তিনি এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করতে দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেন। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি মানুষকে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিলেন। আজ গুলি করে দুজনকে গুরুতর আহত করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। তার শাস্তির দাবি জানিয়েছেন আহতরা।

কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) তাপস কুমার সরকার বলেন, ‘গুলিবিদ্ধ দুজন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছে। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’

মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হালিম বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। এখন একটা মিটিংয়ে আছি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব।’

এ বিষয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ বলেন, ‘দুজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এম.নাসির/১৪

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার

আওয়ামী লী‌গ নেতার গুলিতে কুষ্টিয়ায় দুজন আহত

আপডেট সময় : ০৫:৪৩:২২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
Awami League leader :

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুষ্টিয়ার মিরপুরে আওয়ামী লী‌গ নেতার গুলিতে দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের শিমুলিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত দুজন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ১০ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এ ঘটনায় মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ফুলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আতাহার আলীসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ।

আহতরা হলেন মিরপুর উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের শিমুলিয়া গ্রামের হাসেম গাজী (৫৫) ও বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের রেজাউল ইসলাম (৪৫)। হাসেম কৃষিকাজ করেন এবং রেজাউল ভ্যানচালক।

আহতদের স্বজন ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। গতকাল সন্ধ্যা ৭টার দিকে প্রতিপক্ষের আতাহার আলী ও তার লোকজন এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। তারা হাসেম গাজীকে গুলি করে গুরুতর আহত করেন। এ সময় রেজাউল নামের এক ভ্যানচালকও গুলিবিদ্ধ হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন আহতদের স্বজনরা।

আহত হাসেম, রেজাউল ও তার স্বজনরা জানান, আতাহার আলী প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়ে বেড়ান। তিনি এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করতে দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেন। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি মানুষকে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিলেন। আজ গুলি করে দুজনকে গুরুতর আহত করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। তার শাস্তির দাবি জানিয়েছেন আহতরা।

কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) তাপস কুমার সরকার বলেন, ‘গুলিবিদ্ধ দুজন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছে। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’

মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হালিম বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। এখন একটা মিটিংয়ে আছি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব।’

এ বিষয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ বলেন, ‘দুজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এম.নাসির/১৪