ঢাকা ০৮:৪০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

নারী দিবসে ক্রিকেটারদের সমতায়নের বার্তা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২২:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩ ১১৮ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রতি বছর ৮ মার্চ পালিত হয় আন্তর্জাতিক নারী দিবস, সমাজের বিভিন্ন স্তরে নারীর অবদান ও তাদের ভূমিকার প্রতি সম্মান জানিয়ে এ দিনটি পালিত হয়। এদিন নারীর প্রতি বৈষম্য ও বিদ্বেষমূলক মনোভাব দূর করতে বিশেষভাবে আহ্বান জানানো হয়। বাংলাদেশ নারী দলের ক্রিকেটাররাও এ তালিকায় যোগ হয়েছেন। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রতি এই আহ্বান জানিয়েছেন তারা। টাইগ্রেসরা সমাজের সব স্তরে সমতায়ন প্রতিষ্ঠার বার্তা দিয়েছেন।

এক ভিডিও বার্তায় নারী দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি।তার মতে, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে নারীদের কোণঠাসা করে না রেখে, তাদের পছন্দের ক্যারিয়ারের পথটাকে সহজ করে দিতে হবে।

ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, সমাজ অনেক সময় নির্ধারণ করে দেয় কোন কাজটা ছেলেদের, আর কোনটা মেয়েদের। এটি তাদের (নারী) একটি গণ্ডির ভেতর আটকে রাখার চেষ্টা। যেন সে (নারী) স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যেতে পারে। তাই সমান অধিকারই যথেষ্ট নয়, প্রয়োজন সমতায়নের। সবাইকে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

এদিকে নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত প্রীতি ম্যাচ খেলতে বর্তমানে পাকিস্তানে অবস্থান করছেন প্রমীলা দলের পেসার জাহানারা আলম।

তার দাবি, নারীর অগ্রযাত্রা নিশ্চিতে এবং সমতার সমাজ গড়তে সমতায়ন আনতে হবে।

তিনি জানান, আমরা নারীরা আজ প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছি। পথ অতটা সহজ ছিল না। প্রত্যেকের সফলতার পেছনে রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন সংগ্রামের গল্প। তবে, সমাজ থেকে এখনও বৈষম্য দূর হয়নি।

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দলের অধিনায়ক দিশা বিশ্বাস জানান, নারীর প্রতি সমাজের কুসংস্কার ও নিচু দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। নারীদের সফলতার পথে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো কুসংস্কার ও সমাজভীরু দৃষ্টিভঙ্গি।

তার মতে, চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করে নারীদের এগিয়ে যেতে হচ্ছে। ছিনিয়ে আনতে হচ্ছে বিজয়। সমাজে সমতায়ন প্রতিষ্ঠিত হোক— এই প্রত্যাশায় সবাইকে জানাই আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

জাতীয় দলের আরেক পেসার মারুফা আক্তার বলেন, নারীরা প্রাপ্য সম্মানটুকু পেতে চায়। ঘরে-ঘরের বাইরে, পরিবারে কিংবা কর্মস্থলে শুধু সমঅধিকারই যথেষ্ট নয়, সব ক্ষেত্রে নারীর প্রাপ্য সম্মান ও অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি। তাহলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পূর্ণতা পাবে।

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দলের আরেক ক্রিকেটার স্বর্ণা আক্তার বলেন, পথে-ঘাটে, গণপরিবহনে, কর্মক্ষেত্রে, এমনকি ঘরের নারীরাও এখন অনিরাপদ। আমাদের এগিয়ে চলার পথ মসৃণ করতে সমতায়ন প্রয়োজন। এই আশা ব্যক্ত করে সবাইকে জানাই আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

এম.নাসির/৮

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

নারী দিবসে ক্রিকেটারদের সমতায়নের বার্তা

আপডেট সময় : ০৮:২২:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রতি বছর ৮ মার্চ পালিত হয় আন্তর্জাতিক নারী দিবস, সমাজের বিভিন্ন স্তরে নারীর অবদান ও তাদের ভূমিকার প্রতি সম্মান জানিয়ে এ দিনটি পালিত হয়। এদিন নারীর প্রতি বৈষম্য ও বিদ্বেষমূলক মনোভাব দূর করতে বিশেষভাবে আহ্বান জানানো হয়। বাংলাদেশ নারী দলের ক্রিকেটাররাও এ তালিকায় যোগ হয়েছেন। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রতি এই আহ্বান জানিয়েছেন তারা। টাইগ্রেসরা সমাজের সব স্তরে সমতায়ন প্রতিষ্ঠার বার্তা দিয়েছেন।

এক ভিডিও বার্তায় নারী দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি।তার মতে, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে নারীদের কোণঠাসা করে না রেখে, তাদের পছন্দের ক্যারিয়ারের পথটাকে সহজ করে দিতে হবে।

ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, সমাজ অনেক সময় নির্ধারণ করে দেয় কোন কাজটা ছেলেদের, আর কোনটা মেয়েদের। এটি তাদের (নারী) একটি গণ্ডির ভেতর আটকে রাখার চেষ্টা। যেন সে (নারী) স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যেতে পারে। তাই সমান অধিকারই যথেষ্ট নয়, প্রয়োজন সমতায়নের। সবাইকে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

এদিকে নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত প্রীতি ম্যাচ খেলতে বর্তমানে পাকিস্তানে অবস্থান করছেন প্রমীলা দলের পেসার জাহানারা আলম।

তার দাবি, নারীর অগ্রযাত্রা নিশ্চিতে এবং সমতার সমাজ গড়তে সমতায়ন আনতে হবে।

তিনি জানান, আমরা নারীরা আজ প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছি। পথ অতটা সহজ ছিল না। প্রত্যেকের সফলতার পেছনে রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন সংগ্রামের গল্প। তবে, সমাজ থেকে এখনও বৈষম্য দূর হয়নি।

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দলের অধিনায়ক দিশা বিশ্বাস জানান, নারীর প্রতি সমাজের কুসংস্কার ও নিচু দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। নারীদের সফলতার পথে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো কুসংস্কার ও সমাজভীরু দৃষ্টিভঙ্গি।

তার মতে, চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করে নারীদের এগিয়ে যেতে হচ্ছে। ছিনিয়ে আনতে হচ্ছে বিজয়। সমাজে সমতায়ন প্রতিষ্ঠিত হোক— এই প্রত্যাশায় সবাইকে জানাই আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

জাতীয় দলের আরেক পেসার মারুফা আক্তার বলেন, নারীরা প্রাপ্য সম্মানটুকু পেতে চায়। ঘরে-ঘরের বাইরে, পরিবারে কিংবা কর্মস্থলে শুধু সমঅধিকারই যথেষ্ট নয়, সব ক্ষেত্রে নারীর প্রাপ্য সম্মান ও অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি। তাহলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পূর্ণতা পাবে।

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দলের আরেক ক্রিকেটার স্বর্ণা আক্তার বলেন, পথে-ঘাটে, গণপরিবহনে, কর্মক্ষেত্রে, এমনকি ঘরের নারীরাও এখন অনিরাপদ। আমাদের এগিয়ে চলার পথ মসৃণ করতে সমতায়ন প্রয়োজন। এই আশা ব্যক্ত করে সবাইকে জানাই আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা।

এম.নাসির/৮