ঢাকা ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

অল্পের জন্য রক্ষা বার্সার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৩২:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩ ১১৮ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয়েছে স্প্যানিশ লা লিগার শীর্ষ দল বার্সেলোনাকে। প্রথমার্ধে এগিয়ে গেলেও সেটি শেষ পর্যন্ত ধরে রাখতে তাদের হিমশিম খেতে হয়েছে। পুরো ম্যাচেই বিলবাও স্ট্রাইকাররা মুহুর্মুহু আক্রমণে নাভিশ্বাস তুলেছিল জাভি হার্নান্দেজের শিষ্যদের। তবে কষ্টের এই জয়ে লিগের দুই নম্বরে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে তারা ৯ পয়েন্টে এগিয়ে গেল।

রোববার (১২ মার্চ) রাতে ঘরের বাইরে বিলবাওয়ের আতিথ্য নেয় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। এরপর তারাও লড়াই-পাল্টা লড়াই জমিয়ে তোলে। তবে তাদের গোলরক্ষক আন্দ্রে টের স্টেগান বিলবাওয়ের সামনে শক্ত দেয়াল হয়ে দাঁড়ান। ম্যাচের জয় নির্ধারণী গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রাফিনিয়া।

এদিন ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই বার্সা প্রথম আক্রমণ শাণায়। সার্জিও রবার্তোর ক্রস থেকে ফেররান টোরেসের হাফ ভলি বল বাইরের জাল ঘেঁষে চলে যায়। এরপর দু’দলই আক্রমণে যায়। ১৭তম মিনিটে রবার্ট লেভানডফস্কি ওয়ান-অন-ওয়ানে বক্সে ঢুকে পড়েন। তবে তাকে ঠেকিয়ে দেন বিলবাও গোলরক্ষক। ৩২তম মিনিটে বিলবাও প্রথম পরীক্ষা নেয় টের স্টেগানের। এর মাধ্যমেই তার দেয়াল-বাধা শুরু। তিনি বলটি ঠেকানোর পরমুহূর্তেই আবারও স্বাগতিকদের হানা। তবে প্রতিপক্ষ রাউল গার্সিয়ার হেডটি ক্রসবারে লেগে সেই যাত্রায় রক্ষা পায় স্বাগতিকরা।

বিলবাওয়ের সামনে বারবারই ‘নো এনট্রি’ লেখা ঝুলিয়ে দেন টের স্টেগান
ম্যাচের লিড নেওয়া গোলটি পেতে প্রথমার্ধের যোগ করা সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। সার্জিও বুস্কেটস ফাঁকা জায়গা দিয়ে খুঁজে নেন রাফিনিয়াকে। দ্বিতীয় পোস্টের জালে গিয়ে আঘাত হানে এই ব্রাজিলিয়ানের জোরালো শট। বার্সার লিড গোলের পর দু’দল বিরতিতে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে বিলবাও বার্সাকে চেপে ধরে। তবে তার আগে মাঠে নেমেই ফের এগিয়ে যেতে পারত সফরকারী বার্সা। কিন্তু লেভানডফস্কির হেড বারের বাইরে দিয়ে চলে যায়। ৭২তম মিনিটে বার্সা ডি-বক্সে অতর্কিতভাবে ঢুকে পড়েন বিলবাওয়ের ইনাকি উইলিয়ামস। তবে তার শটটি স্টেগানের হাত ছুঁয়ে পোস্টে বাধা পায়। একটু পরে আবারও ত্রাতা হন স্টেগান। তিনি পরপর দুটি শট ঠেকান। এবার মুনিয়াইনের পর বিলবাওয়ের শটটি নেন নিকো উইলিয়ামস।

৮৭তম মিনিটে গিয়ে শুরু হয় চরম নাটকীয়তা। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের থ্রু বল ধরে ইনাকি উইলিয়ামস বল জালে পাঠান। তবে তার এক ফাঁকেই বিলবাওয়ের মুনিয়াইনের হাতে লাগে বল। সে কারণে স্কোর হওয়ার পরমুহূর্তেই সেটি বাতিল করে দেয় ভিএআর। এরপর বার্সার জালে আরও দু’বার প্রায়ই পৌঁছে গিয়েছিল বিলবাও। স্বাগতিকদের দুই চেষ্টাই শেষ পর্যন্ত ঠেকিয়ে দেওয়া হয়।

এই জয়ে ২৫ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও শক্ত করল বার্সা। সমান ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ আছে দুইয়ে। ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে বিলবাওয়ের অবস্থান নবম।

এম.নাসির/১৩

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

অল্পের জন্য রক্ষা বার্সার

আপডেট সময় : ০৫:৩২:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয়েছে স্প্যানিশ লা লিগার শীর্ষ দল বার্সেলোনাকে। প্রথমার্ধে এগিয়ে গেলেও সেটি শেষ পর্যন্ত ধরে রাখতে তাদের হিমশিম খেতে হয়েছে। পুরো ম্যাচেই বিলবাও স্ট্রাইকাররা মুহুর্মুহু আক্রমণে নাভিশ্বাস তুলেছিল জাভি হার্নান্দেজের শিষ্যদের। তবে কষ্টের এই জয়ে লিগের দুই নম্বরে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে তারা ৯ পয়েন্টে এগিয়ে গেল।

রোববার (১২ মার্চ) রাতে ঘরের বাইরে বিলবাওয়ের আতিথ্য নেয় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। এরপর তারাও লড়াই-পাল্টা লড়াই জমিয়ে তোলে। তবে তাদের গোলরক্ষক আন্দ্রে টের স্টেগান বিলবাওয়ের সামনে শক্ত দেয়াল হয়ে দাঁড়ান। ম্যাচের জয় নির্ধারণী গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রাফিনিয়া।

এদিন ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই বার্সা প্রথম আক্রমণ শাণায়। সার্জিও রবার্তোর ক্রস থেকে ফেররান টোরেসের হাফ ভলি বল বাইরের জাল ঘেঁষে চলে যায়। এরপর দু’দলই আক্রমণে যায়। ১৭তম মিনিটে রবার্ট লেভানডফস্কি ওয়ান-অন-ওয়ানে বক্সে ঢুকে পড়েন। তবে তাকে ঠেকিয়ে দেন বিলবাও গোলরক্ষক। ৩২তম মিনিটে বিলবাও প্রথম পরীক্ষা নেয় টের স্টেগানের। এর মাধ্যমেই তার দেয়াল-বাধা শুরু। তিনি বলটি ঠেকানোর পরমুহূর্তেই আবারও স্বাগতিকদের হানা। তবে প্রতিপক্ষ রাউল গার্সিয়ার হেডটি ক্রসবারে লেগে সেই যাত্রায় রক্ষা পায় স্বাগতিকরা।

বিলবাওয়ের সামনে বারবারই ‘নো এনট্রি’ লেখা ঝুলিয়ে দেন টের স্টেগান
ম্যাচের লিড নেওয়া গোলটি পেতে প্রথমার্ধের যোগ করা সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। সার্জিও বুস্কেটস ফাঁকা জায়গা দিয়ে খুঁজে নেন রাফিনিয়াকে। দ্বিতীয় পোস্টের জালে গিয়ে আঘাত হানে এই ব্রাজিলিয়ানের জোরালো শট। বার্সার লিড গোলের পর দু’দল বিরতিতে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে বিলবাও বার্সাকে চেপে ধরে। তবে তার আগে মাঠে নেমেই ফের এগিয়ে যেতে পারত সফরকারী বার্সা। কিন্তু লেভানডফস্কির হেড বারের বাইরে দিয়ে চলে যায়। ৭২তম মিনিটে বার্সা ডি-বক্সে অতর্কিতভাবে ঢুকে পড়েন বিলবাওয়ের ইনাকি উইলিয়ামস। তবে তার শটটি স্টেগানের হাত ছুঁয়ে পোস্টে বাধা পায়। একটু পরে আবারও ত্রাতা হন স্টেগান। তিনি পরপর দুটি শট ঠেকান। এবার মুনিয়াইনের পর বিলবাওয়ের শটটি নেন নিকো উইলিয়ামস।

৮৭তম মিনিটে গিয়ে শুরু হয় চরম নাটকীয়তা। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের থ্রু বল ধরে ইনাকি উইলিয়ামস বল জালে পাঠান। তবে তার এক ফাঁকেই বিলবাওয়ের মুনিয়াইনের হাতে লাগে বল। সে কারণে স্কোর হওয়ার পরমুহূর্তেই সেটি বাতিল করে দেয় ভিএআর। এরপর বার্সার জালে আরও দু’বার প্রায়ই পৌঁছে গিয়েছিল বিলবাও। স্বাগতিকদের দুই চেষ্টাই শেষ পর্যন্ত ঠেকিয়ে দেওয়া হয়।

এই জয়ে ২৫ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও শক্ত করল বার্সা। সমান ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ আছে দুইয়ে। ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে বিলবাওয়ের অবস্থান নবম।

এম.নাসির/১৩