ঢাকা ০৯:১০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাড়াতেই ১০২ সন্তানের জন্ম দেন মুসা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ১১৩ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অনলাইন ডেস্ক

উগান্ডার নাগরিক মুসা হাসাইয়া। বয়স ৬৮ বছর। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছেন তিনি। চোখ কপালে ওঠার মতো তথ্য হলেও সত্য হলো তার পরিবারের বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৬৯২ জন। তার মধ্যে সন্তানের সংখ্যা ১০২। তাই আর সন্তান নিতে চান না। পরিস্থিতি এমন যে এখন সব সন্তানের নামও মনে রাখতে পারেন না মুসা।

আল-জাজিরার প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১০২ সন্তান, ৫৭৮ নাতি-নাতনী ও ১২ স্ত্রী নিয়ে সংসার চালাতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন মুসা। তাই এই মুহূর্তে এসে তিনি অনুভব করছেন, আর সন্তান নেওয়া ঠিক হবে না।

মুসা বলেন, ‘প্রথমে এটা ছিল কৌতুকের মতো কিন্তু এখন এটা কেবলই সমস্যা।’

মাত্র দুই একর জমিতে ফলানো ফসলে তার পক্ষে এতো বড় সংসারের খরচ চালানো একেবারেই অসম্ভব। অভাব থেকে বাঁচতে এরই মধ্যে মুসাকে ছেড়ে গেছে তার দুই স্ত্রী। মুসা বলেন, ‘আমি তাদের মৌলিক চাহিদা যেমন- খাদ্য, শিক্ষা ও কাপড়ের ব্যয়ই বহন করতে পারছি না। বর্তমানে তার স্ত্রীরা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহণ করছেন, যাতে ভবিষ্যতে আর সন্তানের সংখ্যা না বাড়ে।’

তিনি বলেন, ‘আমার স্ত্রীরা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি নিচ্ছে। তবে আমি নেইনি। আমি আমার দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ থেকে শিখেছি। আমি কেবল আমার প্রথম ও শেষ সন্তানের নাম মনে রাখতে পারছি। অনেক সন্তানের নামই আমার মনে নেই।’

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৭ বছর বয়সে ১৯৭২ সালে প্রথম বিয়ে করেছিলেন মুসা। এক বছর পরই তাদের ঘরে আসে প্রথম সন্তান।

এতো বিয়ে ও সন্তান নেওয়ার কারণও জানিয়েছেন মুসা। তিনি বলেছেন, ‘আমরা মাত্র দুই ভাই ছিলাম। তাই পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাড়াতে আমার ভাই, আত্মীয় ও বন্ধুরা বেশি বিয়ে করে অধিক সন্তান জন্ম দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল।’

মুসার ১০২ সন্তানের মধ্যে বর্তমানে কারো বয়স ১০, কেউ আবার ৫০ বছরে। তার সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রীর বয়স ৩৫।

রইস/০৪

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাড়াতেই ১০২ সন্তানের জন্ম দেন মুসা

আপডেট সময় : ০৮:০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক

উগান্ডার নাগরিক মুসা হাসাইয়া। বয়স ৬৮ বছর। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছেন তিনি। চোখ কপালে ওঠার মতো তথ্য হলেও সত্য হলো তার পরিবারের বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৬৯২ জন। তার মধ্যে সন্তানের সংখ্যা ১০২। তাই আর সন্তান নিতে চান না। পরিস্থিতি এমন যে এখন সব সন্তানের নামও মনে রাখতে পারেন না মুসা।

আল-জাজিরার প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১০২ সন্তান, ৫৭৮ নাতি-নাতনী ও ১২ স্ত্রী নিয়ে সংসার চালাতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন মুসা। তাই এই মুহূর্তে এসে তিনি অনুভব করছেন, আর সন্তান নেওয়া ঠিক হবে না।

মুসা বলেন, ‘প্রথমে এটা ছিল কৌতুকের মতো কিন্তু এখন এটা কেবলই সমস্যা।’

মাত্র দুই একর জমিতে ফলানো ফসলে তার পক্ষে এতো বড় সংসারের খরচ চালানো একেবারেই অসম্ভব। অভাব থেকে বাঁচতে এরই মধ্যে মুসাকে ছেড়ে গেছে তার দুই স্ত্রী। মুসা বলেন, ‘আমি তাদের মৌলিক চাহিদা যেমন- খাদ্য, শিক্ষা ও কাপড়ের ব্যয়ই বহন করতে পারছি না। বর্তমানে তার স্ত্রীরা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহণ করছেন, যাতে ভবিষ্যতে আর সন্তানের সংখ্যা না বাড়ে।’

তিনি বলেন, ‘আমার স্ত্রীরা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি নিচ্ছে। তবে আমি নেইনি। আমি আমার দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ থেকে শিখেছি। আমি কেবল আমার প্রথম ও শেষ সন্তানের নাম মনে রাখতে পারছি। অনেক সন্তানের নামই আমার মনে নেই।’

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৭ বছর বয়সে ১৯৭২ সালে প্রথম বিয়ে করেছিলেন মুসা। এক বছর পরই তাদের ঘরে আসে প্রথম সন্তান।

এতো বিয়ে ও সন্তান নেওয়ার কারণও জানিয়েছেন মুসা। তিনি বলেছেন, ‘আমরা মাত্র দুই ভাই ছিলাম। তাই পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাড়াতে আমার ভাই, আত্মীয় ও বন্ধুরা বেশি বিয়ে করে অধিক সন্তান জন্ম দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল।’

মুসার ১০২ সন্তানের মধ্যে বর্তমানে কারো বয়স ১০, কেউ আবার ৫০ বছরে। তার সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রীর বয়স ৩৫।

রইস/০৪