ঢাকা ১০:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

বিচারকের সই জাল

১৪ ডিসেম্বর, ২ পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন

আদালত প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:০৬:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩ ২০৬১ বার পড়া হয়েছে

১৪ ডিসেম্বর, ২ পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শেখ সাদীর সই জাল করার অভিযোগে, ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে দায়ের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য, আগামী ১৪ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ওই ২ পুলিশ সদস্য হলেন- আদালতের মোটরযান শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত ইনচার্জ ও পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফুয়াদ উদ্দিন এবং একই শাখার কনস্টেবল আবু মুসা।

২৮ নভেম্বর, মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। এ দিন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতোয়ালি থানার এসআই সাইফুল ইসলাম প্রতিবেদন দাখিল করেননি। এ জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ফারহা দিবা ছন্দা প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১৪ ডিসেম্বর ধার্য করেন।

জানা যায়, লাইসেন্স না থাকায় (ঢাকা মেট্রো-ল ২ ৫৫ ৮২২০ এবং ঢাকা মেট্রো- ল ৩৪ ০৯১৮) এই দুটি গাড়ির চালককে জরিমানা করে ট্রাফিক পুলিশ। জরিমানার টাকা না দেয়ায় তাদের বিরুদ্ধে নন এফআইআর পৃথক ২ মামলা আদালতে পাঠানো হয়।

এরপর আদালত ২ চালকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পরে পরোয়ানা ফেরতের কাগজে বিচারকের সই জাল করেন এসআই ফুয়াদ উদ্দিন ও কনস্টেবল আবু মুসা। এ ঘটনা জানাজানি হলে তারা পালিয়ে যান।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর এই ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে রাজধানীর কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন, সিএমএম আদালত-১০ এর বেঞ্চ সহকারী ইমরান হোসেন। একই সঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে কমিশনার বরাবর লিখিত দেয় আদালতের প্রসিকিউশন বিভাগ।

আরও পড়ুন:

জাল সনদে বিমানের ৯ পাইলট!

/আবদুর রহমান খান/

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

বিচারকের সই জাল

১৪ ডিসেম্বর, ২ পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন

আপডেট সময় : ০৬:০৬:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শেখ সাদীর সই জাল করার অভিযোগে, ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে দায়ের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য, আগামী ১৪ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ওই ২ পুলিশ সদস্য হলেন- আদালতের মোটরযান শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত ইনচার্জ ও পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফুয়াদ উদ্দিন এবং একই শাখার কনস্টেবল আবু মুসা।

২৮ নভেম্বর, মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। এ দিন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতোয়ালি থানার এসআই সাইফুল ইসলাম প্রতিবেদন দাখিল করেননি। এ জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ফারহা দিবা ছন্দা প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১৪ ডিসেম্বর ধার্য করেন।

জানা যায়, লাইসেন্স না থাকায় (ঢাকা মেট্রো-ল ২ ৫৫ ৮২২০ এবং ঢাকা মেট্রো- ল ৩৪ ০৯১৮) এই দুটি গাড়ির চালককে জরিমানা করে ট্রাফিক পুলিশ। জরিমানার টাকা না দেয়ায় তাদের বিরুদ্ধে নন এফআইআর পৃথক ২ মামলা আদালতে পাঠানো হয়।

এরপর আদালত ২ চালকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পরে পরোয়ানা ফেরতের কাগজে বিচারকের সই জাল করেন এসআই ফুয়াদ উদ্দিন ও কনস্টেবল আবু মুসা। এ ঘটনা জানাজানি হলে তারা পালিয়ে যান।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর এই ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে রাজধানীর কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন, সিএমএম আদালত-১০ এর বেঞ্চ সহকারী ইমরান হোসেন। একই সঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে কমিশনার বরাবর লিখিত দেয় আদালতের প্রসিকিউশন বিভাগ।

আরও পড়ুন:

জাল সনদে বিমানের ৯ পাইলট!

/আবদুর রহমান খান/