ঢাকা ০১:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

বিনা দোষে ১৭ দিন জেল খেটে মুক্তি পেলেন আশরাফুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৪:০১:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ২৭ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ফটো

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

without fault :

নড়াইলের আশরাফুল বিনা দোষে ১৭ দিন জেল খাটার পর মুক্তি পেয়েছেন । গত ১৮ এপ্রিল ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত আশরাফুলের জামিন মঞ্জুর করেন। পরে তার জামিন আদেশ কেরানীগঞ্জের কারাগারে পৌছানোর পর মুক্তির প্রক্রিয়া শেষ করে কারা কর্তৃপক্ষ। অবশেষে আশরাফুলের বাবা মার অপেক্ষা শেষ হলো।

আশরাফুল আলম নড়াইলের লোহাগাড়ায় ছোট্ট একটি ইলেক্ট্রিকের দোকানের মালিক। প্রায় ৩ বছর ধরে এ ব্যবসা করে সে। হঠাৎ গত ২ এপ্রিল তাকে থানায় ডেকে নেয় লোহাগাড়া থানা পুলিশ। তবে কী কারণে সেটি তাৎক্ষনিকভাবে কিছুই বলেনি পুলিশ। পরদিন আশরাফুল জানতে পারেন, ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের এক মামলায় তার বিরুদ্ধে সাজার রায় হয়েছে। এরপর তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয় নড়াইল আদালতে। সেখান থেকে ৬ এপ্রিল তাকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে পাঠানো হয়।

তবে আশরাফুলে ভাগ্যে আসেন নড়াইলের এক আইনজীবী শেখ শামীম আহমেদ। মামলা দেখেই তিনি বুঝতে পারেন এটি ভুয়া ওয়ারেন্ট। এই ওয়ারেন্টের কপি মূল নথির সঙ্গে মিলিয়ে দেখেন এই নামে কোনো এজাহারে আসামিই নেই। আরও মজার তথ্য হলো ওই মামলা ছিল ঢাকার একটি হত্যা মামলা। যার বিচার এখনও শেষ হয়নি।

বিষয়টি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের নজরে আনা হলে, আদালত নড়াইলের নথি তলব করেন। মিলিয়ে দেখেন কোনো কিছুরই মিল নেই। পরে গত ১৮ এপ্রিল আশরাফুলের জামিন মঞ্জুর করেন। এ সময় আদালত বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে আইনগত ব্যবস্থা নিতে আইনজীবীকে পরামর্শ দেন। অথচ নির্দোষ, নিরপরাধ লেছেকে ১৭ দিন জেল খাটতে হলো।

এম.নাসির/২০

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

বিনা দোষে ১৭ দিন জেল খেটে মুক্তি পেলেন আশরাফুল

আপডেট সময় : ০৪:০১:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

without fault :

নড়াইলের আশরাফুল বিনা দোষে ১৭ দিন জেল খাটার পর মুক্তি পেয়েছেন । গত ১৮ এপ্রিল ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত আশরাফুলের জামিন মঞ্জুর করেন। পরে তার জামিন আদেশ কেরানীগঞ্জের কারাগারে পৌছানোর পর মুক্তির প্রক্রিয়া শেষ করে কারা কর্তৃপক্ষ। অবশেষে আশরাফুলের বাবা মার অপেক্ষা শেষ হলো।

আশরাফুল আলম নড়াইলের লোহাগাড়ায় ছোট্ট একটি ইলেক্ট্রিকের দোকানের মালিক। প্রায় ৩ বছর ধরে এ ব্যবসা করে সে। হঠাৎ গত ২ এপ্রিল তাকে থানায় ডেকে নেয় লোহাগাড়া থানা পুলিশ। তবে কী কারণে সেটি তাৎক্ষনিকভাবে কিছুই বলেনি পুলিশ। পরদিন আশরাফুল জানতে পারেন, ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের এক মামলায় তার বিরুদ্ধে সাজার রায় হয়েছে। এরপর তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয় নড়াইল আদালতে। সেখান থেকে ৬ এপ্রিল তাকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে পাঠানো হয়।

তবে আশরাফুলে ভাগ্যে আসেন নড়াইলের এক আইনজীবী শেখ শামীম আহমেদ। মামলা দেখেই তিনি বুঝতে পারেন এটি ভুয়া ওয়ারেন্ট। এই ওয়ারেন্টের কপি মূল নথির সঙ্গে মিলিয়ে দেখেন এই নামে কোনো এজাহারে আসামিই নেই। আরও মজার তথ্য হলো ওই মামলা ছিল ঢাকার একটি হত্যা মামলা। যার বিচার এখনও শেষ হয়নি।

বিষয়টি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের নজরে আনা হলে, আদালত নড়াইলের নথি তলব করেন। মিলিয়ে দেখেন কোনো কিছুরই মিল নেই। পরে গত ১৮ এপ্রিল আশরাফুলের জামিন মঞ্জুর করেন। এ সময় আদালত বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে আইনগত ব্যবস্থা নিতে আইনজীবীকে পরামর্শ দেন। অথচ নির্দোষ, নিরপরাধ লেছেকে ১৭ দিন জেল খাটতে হলো।

এম.নাসির/২০