ঢাকা ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

আবজাল দম্পতির জামিন শুনানির দিন ধার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:২১:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪ ৮৫ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

Dhaka Metropolitan Sessions Judge: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রী রুবিনা খানমের অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের অভিযোগে জামিন শুনানি আগামী ২০ মার্চ ধার্য করেছেন আদালত। মামলাটি আমলে নিয়ে একই দিনে শুনানি করা হবে।

আজ বুধবার (৬ মার্চ) দুদকের ঢাকা আদালত সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক সামচ জগলুল হোসেনের আদালতে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র জানায়, গত ২৯ ফেব্রুয়ারি আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের সহকারী পরিচালক শহিদুল ইসলাম। এরপর তাদের আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জামিন শুনানির জন্য ২০ মার্চ দিন ধার্য করেছেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা ১১৩ কোটি ৩৯ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৮ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন। ৮৯ কোটি ৮৮ লাখ ৬৬ হাজার ৯০৮ টাকার তথ্য গোপন করেন তারা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন ব্যাংকের ৬৩টি অ্যাকাউন্ট লেয়ারিং করে ৩২৫ কোটি এক লাখ টাকা আত্মসাৎ করে। আসামিরা মালয়েশিয়ার ৫টি ব্যাংকে ২.২ মিলিয়ন রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ার ২২টি ব্যাংক ও ৩টি প্রতিষ্ঠানে ১ কোটি ১৮ লাখ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডার ২টি ব্যাংকে ৫ লাখ ৬৪ হাজার কানাডিয়ান ডলার পাচার করেছে। এছাড়াও কানাডা থেকে অস্ট্রেলিয়ায় ৮৪৪ হাজার ডলার পাচার করে এই দম্পতি।

আরো বলা হয়, আবজাল মালয়েশিয়ায় ৯ লাখ ২৯ হাজার ৬৭০ রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ায় ৫৬ লাখ ৮৮ হাজার ৬৭৭ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডায় ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৬৫৫ কানাডিয়ান ডলার পাচার করেছেন। তার স্ত্রী রুবিনা মালয়েশিয়ায় ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৫২০ রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ায় ৬১ লাখ ৪৯ হাজার ৭১৮ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডায় ৪ লাখ ৬১ হাজার কানাডিয়ান ডলার পাচার করেন।

এ ছাড়া দেশে আবজালের সম্পদ রয়েছে ৬ কোটি ৬৩ লাখ ৬৭ হাজার টাকার। ব্যাংকে তার অবৈধ লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ১৭ লাখ টাকা। রুবিনার দেশে ১০৬ কোটি টাকার সম্পদ এবং ব্যাংকে ৩০৭ কোটি টাকার অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। ২০১০ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই দম্পতির লেনদেন অনুসন্ধান করে এ তথ্য পাওয়া গেছে। গত ২৭ জুন, ২০১৯ তারিখে দুদকের উপ-পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম আবজাল-রুবিনা দম্পতির বিরুদ্ধে ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে দুটি মামলা করেন।

আরকে/৬

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আবজাল দম্পতির জামিন শুনানির দিন ধার্য

আপডেট সময় : ০৬:২১:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

Dhaka Metropolitan Sessions Judge: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রী রুবিনা খানমের অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের অভিযোগে জামিন শুনানি আগামী ২০ মার্চ ধার্য করেছেন আদালত। মামলাটি আমলে নিয়ে একই দিনে শুনানি করা হবে।

আজ বুধবার (৬ মার্চ) দুদকের ঢাকা আদালত সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক সামচ জগলুল হোসেনের আদালতে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র জানায়, গত ২৯ ফেব্রুয়ারি আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের সহকারী পরিচালক শহিদুল ইসলাম। এরপর তাদের আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জামিন শুনানির জন্য ২০ মার্চ দিন ধার্য করেছেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা ১১৩ কোটি ৩৯ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৮ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন। ৮৯ কোটি ৮৮ লাখ ৬৬ হাজার ৯০৮ টাকার তথ্য গোপন করেন তারা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন ব্যাংকের ৬৩টি অ্যাকাউন্ট লেয়ারিং করে ৩২৫ কোটি এক লাখ টাকা আত্মসাৎ করে। আসামিরা মালয়েশিয়ার ৫টি ব্যাংকে ২.২ মিলিয়ন রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ার ২২টি ব্যাংক ও ৩টি প্রতিষ্ঠানে ১ কোটি ১৮ লাখ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডার ২টি ব্যাংকে ৫ লাখ ৬৪ হাজার কানাডিয়ান ডলার পাচার করেছে। এছাড়াও কানাডা থেকে অস্ট্রেলিয়ায় ৮৪৪ হাজার ডলার পাচার করে এই দম্পতি।

আরো বলা হয়, আবজাল মালয়েশিয়ায় ৯ লাখ ২৯ হাজার ৬৭০ রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ায় ৫৬ লাখ ৮৮ হাজার ৬৭৭ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডায় ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৬৫৫ কানাডিয়ান ডলার পাচার করেছেন। তার স্ত্রী রুবিনা মালয়েশিয়ায় ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৫২০ রিঙ্গিত, অস্ট্রেলিয়ায় ৬১ লাখ ৪৯ হাজার ৭১৮ অস্ট্রেলিয়ান ডলার এবং কানাডায় ৪ লাখ ৬১ হাজার কানাডিয়ান ডলার পাচার করেন।

এ ছাড়া দেশে আবজালের সম্পদ রয়েছে ৬ কোটি ৬৩ লাখ ৬৭ হাজার টাকার। ব্যাংকে তার অবৈধ লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ১৭ লাখ টাকা। রুবিনার দেশে ১০৬ কোটি টাকার সম্পদ এবং ব্যাংকে ৩০৭ কোটি টাকার অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। ২০১০ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই দম্পতির লেনদেন অনুসন্ধান করে এ তথ্য পাওয়া গেছে। গত ২৭ জুন, ২০১৯ তারিখে দুদকের উপ-পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম আবজাল-রুবিনা দম্পতির বিরুদ্ধে ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে দুটি মামলা করেন।

আরকে/৬