ঢাকা ১১:০৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে: অর্থমন্ত্রী

ডেস্ক প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪ ২১ বার পড়া হয়েছে

বছরের শেষে মূল্যস্ফীতি কমবে: অর্থমন্ত্রী

নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

Finance Minister : অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের ওপর যাতে কোনো চাপ না পড়ে সেজন্য বাজেটের আকার কমানো হয়েছে। তিনি বলেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে।

শুক্রবার (৭ জুন) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রস্তাবিত বাজেটের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ব্যাংকে তারল্য সংকট হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সব বাজেটেই ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়ার বিষয়টি অর্থমন্ত্রীরাই করেন। সব সরকারই করে। উন্নত দেশগুলো অনেক বেশি নেয়, আমরা রাখি মাত্র ৫ শতাংশের নিচে। তাই এটা তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়। এটা নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।

বাজেটে মূল্যস্ফীতির সময়ে করমুক্ত জীবনসীমা একই রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমি বাজেট বক্তৃতায় মূল্যস্ফীতির কথা বলেছি।

তিনি বলেন, আমরা আশা করছি চলতি বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে। দেখা যাক, চেষ্টা করতে হবে। এখন আপনি লক্ষ্য করেছেন যে আমরা বাজেটের আকার কমিয়ে দিয়েছি। যাতে দ্রব্যমূল্যের ওপর কোনো চাপ না পড়ে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মূল্যস্ফীতি এখনও ৯ শতাংশে রয়েছে। মুদ্রার ওপর বৈশ্বিক চাপের কারণে রুপির মান কমেছে। এর ফলে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি পায়। মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) জনবল বাড়ানোর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থসচিব খায়েকুজ্জামান মজুমদার বলেন, জনবল নিয়োগের বিষয়ে এনবিআর থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমরা জনবল বাড়িয়েছি। ভবিষ্যতে আরও বাড়বে বলে আশা করছি।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, সক্ষমতা বাড়াতে অটোমেশনের বিষয়টি শুরু হয়েছে। আমরা জনবল নিয়োগের বিষয়ে অর্থ বিভাগ থেকে অনুমোদন পেয়েছি।

সামুদ্রিক অর্থনীতি নিয়ে বাজেটে কোনো উদ্যোগ আছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে সমুদ্র অর্থনীতির অধ্যয়নসহ অন্যান্য বিষয়ে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী আবদুস শহীদ, শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, পরিকল্পনামন্ত্রী আবদুস সালাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী আর.এ.এম. উবাদুল মোকতাদির, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকার আয়েশা খান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা। রহমাতুল মুনিম, অর্থ সচিব ড. মোঃ খায়রুজ্জামান মজুমদার, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে: অর্থমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

Finance Minister : অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের ওপর যাতে কোনো চাপ না পড়ে সেজন্য বাজেটের আকার কমানো হয়েছে। তিনি বলেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে।

শুক্রবার (৭ জুন) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রস্তাবিত বাজেটের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ব্যাংকে তারল্য সংকট হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সব বাজেটেই ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়ার বিষয়টি অর্থমন্ত্রীরাই করেন। সব সরকারই করে। উন্নত দেশগুলো অনেক বেশি নেয়, আমরা রাখি মাত্র ৫ শতাংশের নিচে। তাই এটা তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়। এটা নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।

বাজেটে মূল্যস্ফীতির সময়ে করমুক্ত জীবনসীমা একই রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমি বাজেট বক্তৃতায় মূল্যস্ফীতির কথা বলেছি।

তিনি বলেন, আমরা আশা করছি চলতি বছরের শেষ নাগাদ মূল্যস্ফীতি কমবে। দেখা যাক, চেষ্টা করতে হবে। এখন আপনি লক্ষ্য করেছেন যে আমরা বাজেটের আকার কমিয়ে দিয়েছি। যাতে দ্রব্যমূল্যের ওপর কোনো চাপ না পড়ে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মূল্যস্ফীতি এখনও ৯ শতাংশে রয়েছে। মুদ্রার ওপর বৈশ্বিক চাপের কারণে রুপির মান কমেছে। এর ফলে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি পায়। মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) জনবল বাড়ানোর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থসচিব খায়েকুজ্জামান মজুমদার বলেন, জনবল নিয়োগের বিষয়ে এনবিআর থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমরা জনবল বাড়িয়েছি। ভবিষ্যতে আরও বাড়বে বলে আশা করছি।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, সক্ষমতা বাড়াতে অটোমেশনের বিষয়টি শুরু হয়েছে। আমরা জনবল নিয়োগের বিষয়ে অর্থ বিভাগ থেকে অনুমোদন পেয়েছি।

সামুদ্রিক অর্থনীতি নিয়ে বাজেটে কোনো উদ্যোগ আছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে সমুদ্র অর্থনীতির অধ্যয়নসহ অন্যান্য বিষয়ে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী আবদুস শহীদ, শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, পরিকল্পনামন্ত্রী আবদুস সালাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী আর.এ.এম. উবাদুল মোকতাদির, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকার আয়েশা খান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা। রহমাতুল মুনিম, অর্থ সচিব ড. মোঃ খায়রুজ্জামান মজুমদার, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।