ঢাকা ০৯:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

‘পাওনা টাকা দাবি করায়’ অপহরণের পর হত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩ ১১১ বার পড়া হয়েছে
নিউজ ফর জাস্টিস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

হত্যার ঘটনায় তাদের ভাড়াটিয়া সোহাগকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

 

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর সদর

দাদনের টাকা দাবি করায় গাজীপুরে এক দাদন ব্যবসায়ীর ৯ বছরের ছেলেকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। দাদনের টাকা দাবি করায় গাজীপুরে এক দাদন ব্যবসায়ীর ৯ বছরের ছেলেকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গত শুক্রবার গাজীপুরের কুনিয়া পাছর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

সন্দেহভাজন হত্যাকারী সোহাগকে গ্রেপ্তারের পর আজ রোববার বিকেলে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ) মাহবুব-উজ-জামান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। মাহবুব-উজ-জামানের ভাষ্য, সোহাগ ভিকটিম তামজিদকে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে। তিনি তামজিদদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইব্রাহিম হোসেন জানান, সোহাগ ভিকটিমের মায়ের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা এবং তার বোন সুলতানা ১৬ হাজার টাকা দাদন নিয়েছিলেন। এই টাকা পরিশোধের জন্য তাদের ওপর চাপ ছিল। এ ছাড়া ঘর ভাড়াও পাওনা ছিল। এর মধ্যে তামজিদদের বাসায় চুরি হয়। চুরির জন্য সোহাগের পরিবারকে সন্দেহ করা হচ্ছিল। এসব কারণে তামজিদের পরিবারের ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন সোহাগ।

ওসি মো. ইব্রাহিম আরও জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় আসামি সোহাগ ভিকটিমকে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে কৌশলে তার বাড়ির সামনে থেকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যায়। তামজিদকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে শনিবার দুপুরে গাছা থানায় মামলা করে তার পরিবার।

পরে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে সোহাগকে টাঙ্গাইলের নাগরপুরের তেপাড়িয়া গ্রামে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সিরাজগঞ্জের চৌহালি উপজেলার চৌদ্দরশি গ্রামের একটি খেতে বালুচাপা অবস্থায় তামজিদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

‘পাওনা টাকা দাবি করায়’ অপহরণের পর হত্যা

আপডেট সময় : ০৮:৫১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

হত্যার ঘটনায় তাদের ভাড়াটিয়া সোহাগকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

 

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর সদর

দাদনের টাকা দাবি করায় গাজীপুরে এক দাদন ব্যবসায়ীর ৯ বছরের ছেলেকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। দাদনের টাকা দাবি করায় গাজীপুরে এক দাদন ব্যবসায়ীর ৯ বছরের ছেলেকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গত শুক্রবার গাজীপুরের কুনিয়া পাছর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

সন্দেহভাজন হত্যাকারী সোহাগকে গ্রেপ্তারের পর আজ রোববার বিকেলে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ) মাহবুব-উজ-জামান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। মাহবুব-উজ-জামানের ভাষ্য, সোহাগ ভিকটিম তামজিদকে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে। তিনি তামজিদদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইব্রাহিম হোসেন জানান, সোহাগ ভিকটিমের মায়ের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা এবং তার বোন সুলতানা ১৬ হাজার টাকা দাদন নিয়েছিলেন। এই টাকা পরিশোধের জন্য তাদের ওপর চাপ ছিল। এ ছাড়া ঘর ভাড়াও পাওনা ছিল। এর মধ্যে তামজিদদের বাসায় চুরি হয়। চুরির জন্য সোহাগের পরিবারকে সন্দেহ করা হচ্ছিল। এসব কারণে তামজিদের পরিবারের ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন সোহাগ।

ওসি মো. ইব্রাহিম আরও জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় আসামি সোহাগ ভিকটিমকে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে কৌশলে তার বাড়ির সামনে থেকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যায়। তামজিদকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে শনিবার দুপুরে গাছা থানায় মামলা করে তার পরিবার।

পরে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে সোহাগকে টাঙ্গাইলের নাগরপুরের তেপাড়িয়া গ্রামে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সিরাজগঞ্জের চৌহালি উপজেলার চৌদ্দরশি গ্রামের একটি খেতে বালুচাপা অবস্থায় তামজিদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।